ষোড়শ সংশোধনী বাতিল রায়ে প্রধান বিচারপতির পর্যবেক্ষণের তীব্র সমালোচনা সংসদে আপডেট: ১০:৫২, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় ও প্রধান বিচারপতির পর্যবেক্ষণে আপত্তিকর ও অসাংবিধানিক মন্তব্যের তীব্র সমালোচনা করেছেন সংসদ সদস্যরা। রায় ও পর্যবেক্ষণের আপত্তিকর অংশ বাদ দিতে আইনি পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি করেছেন তারা।

স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে আজ বুধবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে কার্যপ্রণালী বিধির ১৪৭ বিধি অনুযায়ী আনা একটি প্রস্তাবের ওপর আলোচনা এ দাবি জানান তারা।

জাসদের মাঈনুদ্দিন খান বাদল এ প্রস্তাব উত্থাপন করেন। এর ওপর আলোচনায় অংশ নেন সরকারি ও বিরোধী দলের সিনিয়র সদস্যরা। মাঈনুদ্দিন খান বাদল বলেন, প্রধান বিচারপতির দেওয়া পর্যবেক্ষণের কিছু আপত্তিকর মন্তব্য করা হয়েছে, এগুলো বাতিল করতে আইনি পদক্ষেপ গ্রহণ করতে হবে। বিচার বিভাগে সংসদের হস্তক্ষেপ প্রমাণ করতে না পেরে অপ্রাসঙ্গিক কথা বলেছেন তিনি।

বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, আমরা যখন সংবিধান প্রণয়ন করি। বিচারকদের অনেকেই তখন স্কুলের ছাত্র। আজ তারা নাকি পরিপক্ক আর আমরা জনপ্রতিনিধিরা অপরিপক্ক। এটা দুঃখজনক।

তিনি বলেন, “আমরা যখন সংবিধান প্রণয়ন করি তখন এই বিচারপতিদের অনেকেই স্কুলের ছাত্র। আজকে তারা বলছেন, আমাদের দ্বারা নির্বাচিত রাষ্ট্রপতির কর্তৃক নিয়োগপ্রাপ্ত বিচারকরা হলেন পরিপক্ক। আর আমরা জনগণের দ্বারা নির্বাচিত প্রতিনিধিরা অপরিপক্ক।”

আওয়ামী লীগের সিনিয়র সদস্য শেখ সেলিম বলেন, এ রায়ের মধ্যদিয়ে সংবিধান লঙ্ঘন করেছেন প্রধান বিচারপতি। তিনি রাষ্ট্রপতির ক্ষমতা হরণ করতে চান বলেও মন্তব্য করেন শেখ সেলিম।