কাজ ও আশ্রয়ের সন্ধানে চট্টগ্রাম শহরে ছড়িয়ে পড়েছে রোহিঙ্গারা আপডেট: ০৬:২৩, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৭

চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: কাজ ও আশ্রয়ের সন্ধানে চট্টগ্রাম শহরেও ছড়িয়ে পড়েছে মিয়ানমার থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গারা। নগরীর বস্তি ও পরিত্যক্ত জায়গায় অস্থায়ী ঘর বানিয়ে আশ্রয় নিচ্ছে তারা।

কিছুটা সচ্ছল রোহিঙ্গারা মিথ্যা পরিচয়ে বাসা ভাড়া নিয়ে মিশে যাচ্ছে স্থানীয়দের সাথে। নজরদারির অভাবে রোহিঙ্গারা কক্সবাজারের বাইরে ছড়িয়ে পড়ায় উদ্বিগ্ন নাগরিক সমাজ।

প্রায় চার লাখ রোহিঙ্গার ভারে বিপর্যস্ত কক্সবাজার। পুলিশের চেক পোস্ট বসিয়েও তাদের উখিয়া-টেকনাফের নির্দিষ্ট জায়গার মধ্যে রাখা যাচ্ছে না।

কক্সবাজার শহরে এবং জেলার বাইরে চট্টগ্রামেও ছড়িয়ে পড়ছে তারা। আবার অনেকে চিকিৎসার জন্যে ঢুকে পড়ছে চট্টগ্রামে।

এ পর্যন্ত অন্তত ১০০ জন রোহিঙ্গা চিকিৎসা নিয়েছে চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে। তাদের মধ্যে আটজন চিকিৎসা্র পর ফিরে গেছে, মারা গেছে দুজন।

কক্সবাজার থেকে আসা বিভিন্ন যানবাহনে তারা চট্টগ্রামে ঢুকছে। আশ্রয় নিচ্ছে বিভিন্ন বস্তি ও পরিত্যক্ত স্থানে। মিথ্যে পরিচয়ে বাসা ভাড়া নেয়ার খবরও পাওয়া যাচ্ছে। বিষয়টি ভাবিয়ে তুলেছে নগরবাসীকে।

চট্টগ্রামের সচেতন নাগরিক কমিটির সাবেক সভাপতি দেলোয়ার হোসেন বলেন, "ঘুষ দিয়ে বা অন্য কোনোভাবে যাতে নাগরিকত্ব না নিতে পারে , কিংবা আমাদের এখান থেকে ভুয়া পাসপোর্ট যোগাড় করে যাতে বিদেশ না যেতে পারে। এ ব্যাপারে আমাদের সরকারকে উদ্যোগী হতে হবে। অন্যথায় সামাজিকভাবে আমরা বড় ধরণের সংকটে পড়ে যাবো।"

রোহিঙ্গারা ছড়িয়ে পড়লে তাদের বায়োমেট্রিক্স তথ্য সংগ্রহ ও নিবন্ধনের কাজও চ্যালেঞ্জের মুখে পড়তে পারে বলে আশংকা নাগরিক সমাজের।