সময় বাড়িয়েও মিলছে না হজযাত্রী

প্রকাশিত: ০১-০৩-২০২৩ ১৪:০৮

আপডেট: ০১-০৩-২০২৩ ২০:৪৬

ফাহিম মোনায়েম: কয়েক দফা সময় বাড়িয়েও চলতি বছর বাংলাদেশ থেকে হজযাত্রীর নির্ধারিত কোটা পুরণ হয়নি।  এবছর সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ১ লাখ ২৭ হাজার ১৯৮ জন হজে যেতে পারবেন। তবে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নিবন্ধন করেছে ৩৩ হাজার ৭৮জন হজযাত্রী। হজ এজেন্সি কর্তৃপক্ষ বলছে, খরচ বেড়ে যাওয়ায় সময় বাড়িয়েও মিলছে না কাঙ্খিত হজযাত্রী। আগামী ১৫ই মার্চ পর্যন্ত সময় রয়েছে, এর মধ্যে কোটা পুর্ণ হবে বলে আশা করছে হজ অফিস। 

করোনা অতিমারির পর এবারই প্রথম বাংলাদেশ পূর্ণ কোটায় হজযাত্রী পাঠানোর সুযোগ পেয়েছে। চাঁদ দেখা সাপেক্ষে আগামী ২৭শে জুন সৌদি আরবে হবে পবিত্র হজ। ৮ই ফেব্র“য়ারি থেকে টাকা জমা দিয়ে শুরু হয় হজের নিবন্ধন।

ধর্ম মন্ত্রণালয়ের তথ্য অনুযায়ী, হজে যেতে আগে থেকেই প্রাক নিবন্ধন করেছে ৮লাখ ৮৪ হাজার ৫১৪ জন। প্রাক নিবন্ধনকারীরাই কেবল হজে যাওয়ার নিবন্ধন করতে পারবেন। ২৮শে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত সরকারি ও বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৩৩ হাজার ৭৮জন নির্ধারিত টাকা জমা দিয়ে নিবন্ধন করেছে। এবার হজে যাওয়ার সর্বনিম্ন খরচ জনপ্রতি ৬ লাখ ৮৩ হাজার ১৫ টাকা। আগের চেয়ে খরচ বেড়ে যাওয়ায় এবার হজযাত্রী কম।

হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ হাব বেসরকারি ব্যবস্থপনায় সর্বনিম্ন ৬ লাখ ৭২ হাজার ৬১৮ টাকার হজ প্যাকেজ ঘোষণা করে। ২০২২ সালে সর্বনিম্ন খরচ ছিল ৫ লাখ ২৭ হাজার ৩৪০ টাকা। ২০১৯ সালে যা ছিলো ৩ লাখ ৪৫ হাজার টাকা। গত ৯ বছরে হজ খরচ বেড়েছে ১৩১ শতাংশ।

হজ ক্যাম্পের পরিচালক সাইফুল ইসলাম জানান, আগামী ১৫ই মার্চের মধ্যে নিবন্ধনের কোটা পুরণ হবে। 

হজ নিবন্ধনের সময় তৃতীয়বার বাড়িয়ে ৭ই মার্চ করেছে ধর্ম মন্ত্রণালয় । 

 

FM/shimul