উড়িষ্যায় যেভাবে দুর্ঘটনায় তিন ট্রেন

প্রকাশিত: ০৩-০৬-২০২৩ ১৪:১৮

আপডেট: ০৩-০৬-২০২৩ ১৪:১৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ভারতের উড়িষ্যায় ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে। এখন পর্যন্ত ২৮০ জন নিহতের খবর মিলেছে। আহতের সংখ্যা ৯ শতাধিক। আজ (শনিবার) উদ্ধারকাজে মোতায়েন করা হয়েছে সেনাবাহিনী। উড়িষ্যায় একদিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী নবীন পাটনায়েক।দুর্ঘটনাস্থলে যাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। এদিকে, এ ঘটনায় শোক প্রকাশ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

তিনটি ট্রেনের সংঘর্ষে মুহূর্তেই যেনো উল্টেপাল্টে গেলো সবকিছু। রেলের লাইন বলতে কিছুই নেই। দুমড়ে মুচড়ে গেছে বগিগুলো। একটার গায়ে উঠে পড়েছে আর একটা। ছড়িয়ে ছিটিয়ে আছে যাত্রীদের দেহ। কান্না আর আর্তনাদে থমথমে চারপাশ। ভারতের উড়িষ্যার বালেশ্বরে ভয়াবহ ট্রেন দুর্ঘটনার পরের চিত্র এখন এমন। 

ভারতীয় গণমাধ্যমগুলো জানিয়েছে, শুক্রবার সন্ধ্যারাতে বালেশ্বর এলাকায় প্রথমে কলকাতা থেকে চেন্নাইগামী করমণ্ডল এক্সপ্রেস তীব্র গতিতে গিয়ে ধাক্কা মারে একই লাইনে আগে আগে চলতে-থাকা একটি মালগাড়ির পিছনে। করমণ্ডল এক্সপ্রেসের ইঞ্জিনটি মালগাড়ির উপরে উঠে যায়। এর ২৩টি বগির মধ্যে ১৫টি ছিটকে পড়ে পাশের লাইনে। সেই লাইন দিয়ে তখন আসছিল বেঙ্গালুরু-হাওড়া সুপারফাস্ট এক্সপ্রেস। ছিটকে পড়া বগির সঙ্গে সংঘর্ষে হাওড়াগামী ট্রেনটিরও দু’টি বগি লাইনচ্যুত হয়।

দুর্ঘটনার পরপরই সেখানে ছুটে যায় রেলওয়ে ও আশপাশের লোকজন। চারিদিকে তখন আর্তচিৎকার। শুরু হয় উদ্ধারকাজ। এখন পর্যন্ত হতাহতের সংখ্যা সহস্রাধিক। ট্রেনের দরজা ভেঙে ও গ্যাস কাটারের সাহায্যে উদ্ধারকাজ চালানো হচ্ছে। মোতায়েন করা হয়েছে সেনাবাহিনীও। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, এখনও দুর্ঘটনাকবলিত ট্রেনে অনেক যাত্রী আটকে আছে। তাই হতাহতের সংখ্যা আরও বাড়ার শংকা রয়েছে। 

সকালে ঘটনাস্থলে যান উড়িষ্যার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পাটনায়েক ও রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণসহ রেলের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা। দুর্ঘটনার কারণ জানতে এরই মধ্যে তদন্ত শুরু করেছে কর্তৃপক্ষ। এদিকে, এই দুর্ঘটনার জন্য দু:খ প্রকাশ করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। নিহতদের পরিবারের জন্য ২ লাখ ও আহতদের জন্য ৫০ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। এছাড়াও, দেশটির রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণ নিহতদের প্রতি পরিবারের জন্য ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার ঘোষণা দিয়েছেন। উড়িষ্যায় একদিনের শোক ঘোষণা করা হয়েছে। 

সরকারি তথ্য অনুযায়ী, ১৯৪৭ সালে স্বাধীনতার পর থেকে এ পর্যন্ত ভারতে যত ট্রেন দুর্ঘটনা হয়েছে, শুক্রবারের দুর্ঘটনাটি তার মধ্যে প্রাণহানির দিক দিয়ে এখন পর্যন্ত তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে।

AAJ/sat