দ্বিতীয় সংসারও টিকল না মুনমুনের

প্রকাশিত: ০৭:২৬, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

আপডেট: ১০:২৩, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০২০

অনলাইন ডেস্ক: ঢাকাই সিনেমার সমালোচিত চিত্রনায়িকা মুনমুন। সম্প্রতি মসজিদের সামনে নেচে তুমুল সমালোচনায় পড়েন এই অভিনেত্রী। এরই মধ্যে জানা গেছে, তিনি তার দ্বিতীয় স্বামী মীর মোশাররফ রোবেনকে ডিভোর্স দিয়েছেন। এখন তারা আলাদা থাকছেন। ঈদুল আজহার দুইদিন পর তাদের বিচ্ছেদ হয়ে বলে জানা গেছে।

এফডিসিপাড়ায় খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কুরবানির ঈদের পরপরই দ্বিতীয় স্বামী রোবেনকে ডিভোর্স দেন মুনমুন। ডিভোর্সের বিষয়টি এক সংবাদ মাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন মুনমুন নিজেই। এই দম্পতির ঘরে আট বছরের একটি ছেলে সন্তান রয়েছে।

মুনমুন জানান, ‘স্বামীর সাথে কোনো মনের মিল না থাকার কারণে আমি নিজেই তাকে ডিভোর্স দিয়েছি। আমি বর্তমানে একাই রয়েছি। মূলত নিজের মতো করে জীবন কাটানোর জন্য আমি ডিভোর্স দিয়েছি।

মুনমুন আরও জানান, ‘১০ বছর আমরা একসঙ্গে ছিলাম, সে শুধু তার স্বার্থের কথাই ভেবে গেছে। সংসারের দিকে মনোযোগ ছিল না। সে সিনেমা বানাতে চাইতো আমি অর্থের যোগান দিতাম। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হতো না। যার কারণে আমি তাকে বলতাম সংসারের দিকে মনোযোগ দিতে। সে দিতো না।

শারীরিক নির্যাতন করতো উল্লেখ করে মুনমুন বলেন, ‘তাকে আমি আমার নিজের একটি ফ্ল্যাট ছেড়ে দিয়েছিলাম স্টুডিওর জন্য। বিভিন্নভাবে টাকা পয়সা দিতাম। আমিও চাইতাম সে উঠুক, সে নায়ক হতে চাইতো। আমিও সর্বোচ্চ চেষ্টা করতাম, কিন্তু আমাকে শারীরিক নির্যাতন করতো এটা মেনে নিতে পারতাম না।

তিনি আরও বলেন, ‘১০ বছরের মধ্যে চার বছর সেপারেশনে ছিলাম। একটা সময় সে ফিল করতে পেরেছে তার এটা আমাকে জানায়। তারপর ফিরে আসে। তবে ফিরে আসার পরেও সেই আগের মতো হয়ে যায়। সেই টাকা পয়সা নেওয়া, মারধর করা। আর কোনো কাজ নেই তার। নিজের চিন্তায় অস্থির সে, অথচ আমাদের দুইজনের একটি সন্তান রয়েছে সেদিকে তার মনোযোগ নেই। এসব কথা বলাই যেত না তাকে।

মুনমুন বলেন, ‘সব মিলিয়ে দেখলাম রোবেনের সঙ্গে আর একসঙ্গে থাকা সম্ভব না। আসলে শারীরিক নির্যাতনের মাত্রা বেড়েই যাচ্ছিল। যার কারণে আমি তাকে ডিভোর্সের সিদ্ধান্ত নেই এবং কোরবানি ঈদের একদিন পরে সেটা কার্যকর হয়।

মুনমুন বাংলাদেশের একজন জনপ্রিয় চলচ্চিত্র অভিনেত্রী। প্রায় ৮৫টি চলচ্চিত্রে অভিনয় করেছেন তিনি। সরকার অশ্লীলতার বিপক্ষে পদক্ষেপ গ্রহণ করলে ২০০৩ সালের পর তার চলচ্চিত্রে উপস্থিতি কমে যায়। সর্বশেষ ২০১৭ সালে মিজানুর রহমান মিজান পরিচালিত রাগী চলচ্চিত্রে খলচরিত্রে অভিনয় করেন তিনি।

মুনমুন ২০০৩ সালে সিলেটের একজন ব্যবসায়ীর সঙ্গে পরিণয়সূত্রে আবদ্ধ হলে, যুক্তরাজ্যে চলে যান। ২০০৬ সালে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। পরে, ২০১০ সালে তিনি দ্বিতীয় বিয়ে করেন।

প্রসঙ্গত রোবেন পেশায় একজন শৌখিন মডেল মুনমুনের সঙ্গে যাত্রা-শোয়েসহ পারফর্মার হিসেবে কাজ করেন। এই সূত্রেই তাদের প্রেমের সম্পর্ক হয়। সেখান থেকেই বয়সে ছোট রোবেনকে বিয়ে করেন মুনুমুন। এই দম্পতির দুই পুত্র সন্তান রয়েছে।

এই বিভাগের আরো খবর

যশ চোপড়ার চরিত্রে কিং খান

অনলাইন ডেস্ক: এবার বলি পাড়ার নতুন খবর...

বিস্তারিত
করোনায় অভিনেতা নিশোর বাবার মৃত্যু

নিজস্ব প্রতিবেদক: জনপ্রিয় অভিনেতা...

বিস্তারিত
করোনা আক্রান্ত অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী

বিনোদন ডেস্ক: করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত...

বিস্তারিত
সুশান্তের শরীরে বিষপ্রয়োগের প্রমাণ মেলেনি

অনলাইন ডেস্ক: বলিউড অভিনেতা সুশান্ত...

বিস্তারিত
রিয়ার বাড়িতে মাদক, জামিনের বিরোধিতা

অনলাইন ডেস্ক: মাদক মামলায় রিয়া...

বিস্তারিত
দুবাইয়ে হবু বরের সঙ্গে নুসরাত ফারিয়া

নিজস্ব প্রতিবেদন: নুসরাত ফারিয়া সব...

বিস্তারিত
২০২২ সালে মুক্তি পাবে ‘অ্যাভাটার ২’

অনলাইন ডেস্ক: জেমস ক্যামেরন মানেই...

বিস্তারিত
গায়ক হিসেবে ভিন ডিজেলের আত্মপ্রকাশ

অনলাইন ডেস্ক: হলিউডের রুপালি পর্দা...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *