স্বামীই তুলে দিয়েছিলেন পাচারকারীদের কাছে!

প্রকাশিত: ১৩-০৬-২০২১ ১০:১৮

আপডেট: ২৫-০১-২০২২ ০৯:৫৮

আশিক মাহমুদ: মোবাইল ফোনে পরিচয়। এরপর প্রেম, বিয়ে। শেষ পরিণতি ওই স্বামীই মেয়েটিকে ৪০ হাজার টাকায় নারী পাচারকারী চক্রের হাতে তুলে দেন। চক্রের সদস্যরা মেয়েটিকে ভারতে পাচার করে। সম্প্রতি পালিয়ে দেশে ফিরে স্বামী জাহিদুলসহ ৯ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেছেন ওই নারী। শারীরিক ও যৌন নির্যাতনের বর্ণনাও দিয়েছেন তিনি।

ভারতে পাচার হওয়া আরো এক তরুণী কৌশলে দেশে ফিরে এসেছেন। অমানসিক নির্যাতনের বর্ণনা দিয়ে মানবপাচার ও বিদেশে যৌনকর্মে বাধ্য করার অভিযোগে স্বামী জাহিদুল ইসলাম রনিসহ নয় জনের নাম উল্লেখ করে রাজধানীর হাতিরঝিল থানায় মামলা করেছেন।

মুঠোফোনে ভুক্তভোগী মেয়েটি জানিয়েছেন, মোবাইল ফোনে প্রেমের সম্পর্কের পর তারা পালিয়ে বিয়ে করেন। পরে স্বামী জাহিদুল তাকে ভারতে চাকরি দেবার কথা বলে পাচারকারী চক্রের কাছে বিক্রি করেন। চলতি বছরের শুরুর দিকে সাতক্ষীরা সীমান্ত দিয়ে অবৈধভাবে ভারতে পাচার করা হয় মেয়েটিকে। তাকে চেন্নায় শহরে চার মাস আটকে রেখে বাধ্য করা হয় অনৈতিক কাজে।

মামলার এজাহারে, বাংলাদেশের নদী নামের এক নারীকে মূল হোতা হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।

মামলা গ্রহণের পর আসামিদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশ। শনাক্ত করা হয়েছে মূল হোতা রনিসহ কয়েকজনকে।

চলতি মাসে ভারতের বেঙ্গালুরু থেকে পালিয়ে দেশে ফিরে মামলা করেন আরো এক তরুণী। এখন পর্যন্ত ওই ঘটনায় অভিযুক্ত ৯ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

/admiin