চট্টগ্রামে জলাবদ্ধতার দুঃখ ঘুচবে কবে

প্রকাশিত: ০৮:৪০, ২৯ জুলাই ২০২১

আপডেট: ০৯:০৮, ২৯ জুলাই ২০২১

মহসিন চৌধুরী: চট্টগ্রামবাসীর দুঃখ জলাবদ্ধতা যেনো পিছু ছাড়ছে না। নানান প্রকল্প গ্রহণ করার পরেও কোনো সুফল পাচ্ছেন না নগরবাসী। বৃষ্টি হলেই প্লাবিত হয় নগরীর অনেক এলাকা। হাসপাতালের ভেতরেও পানি জমে থাকে। চারটি মেগা প্রকল্প চার বছরের বেশি সময় ধরে চলমান থাকলেও এসবের সুফল মিলবে কিনা তা নিয়েও সংশয় মানুষের মনে।

সামান্য বৃষ্টি কিংবা জোয়ারের পানিতে চট্টগ্রামের বহু এলাকা তলিয়ে যাওয়া নিয়মিত ঘটনা। গত তিন দশকে চট্টগ্রামের চাক্তাই খাল ঘিরে নেয়া হয়েছে পরিকল্পনা, বহু অর্থও ব্যয় হয়েছে। সবই পানিতে গেছে। জলাবদ্ধতা নিরসনে পাঁচ বছর আগে গ্রহণ করা হয় ৪টি মেগা প্রকল্প। যাতে ব্যয় হবে ১০ হাজার ৯২১ কোটি টাকা।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের দুটি প্রকল্পে ৩৬টি খাল খনন, কালভার্ট, স্লুইস গেট, রিটার্নিং  দেয়াল নির্মাণের কথা। প্রকল্পের মেয়াদ গত জুন মাসে শেষ হলে এক বছর বাড়ানো হয়। পানি উন্নয়ন বোর্ড চাক্তাই থেকে কালুরঘাট পর্যন্ত কর্ণফুলীর তীরে সাড়ে ৮ কিলোমিটার বাঁধ, রাস্তা ও ¯øুইস গেইট নির্মাণের জন্য ব্যয় করছে ২ হাজার ৩১০ কোটি টাকা। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন বহদ্দারহাট থেকে চাক্তাই পর্যন্ত নতুন খাল খননের জন্য ১২শ’ কোটি টাকার প্রকল্প গ্রহণ করেও আলোর মুখ দেখছে না।

চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ ও পানি উন্নয়ন বোর্ড প্রকল্পের প্রায় অর্ধেক টাকা ইতিমধ্যেই ব্যয় করেছে, চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন জরুরি ভিত্তিতে সংস্কারের নামে খরচ করেছে অনেক টাকা। কিন্তু জলাবদ্ধতা কাটছেই না। এক সংস্থা দোষারোপ করছে অন্য সংস্থাকে।

এই চার মেগা প্রকল্প পরিকল্পিত ও সমন্বিতভাবে বাস্তবায়িত না হলে এর সুফল নিয়ে সন্দিহান প্রকাশ করেন চুয়েট পুরকৌশল বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. মো: আফতাবুর রহমান।

তবে জলাবদ্ধতা নিরসন ও কাজের তদারকির জন্য চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনারের নেতৃত্বে কমিটি করা হয়েছে বলে জানালেন চট্টগ্রামের বিভাগীয় কমিশনার কামরুল হাসান। করোনো অতিমারী ও বর্ষার কারণে প্রকল্পগুলো বাস্তবায়নের গতি কিছুটা ধীর হয়েছে বলে জানান তিনি।

চট্টগ্রামের জলাবদ্ধতা নিরসনে নেয়া প্রকল্প:

৩৬টি খাল খনন, কালভার্ট ও স্লুইসগেট নির্মাণ করার জন্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন কর্তৃপক্ষকে (সিডিএ) ২টি প্রকল্প দেওয়া হয়। জুনে মেয়াদ শেষ হলেও কাজ শেষ করার জন্য আরো এক বছর মেয়াদ বৃদ্ধি করা হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ডের ১টি প্রকল্পে ৮ কি.মি বাঁধ নির্মাণ এখনো শেষ হয়নি। এছাড়া সিটি করর্পোরেশন ১টি প্রকল্পে বহদ্দারহাট-চাক্তাই নতুন খাল খনন করার কথা ছিল যা এখনো শেষ হয়নি। এই ৪ প্রকল্পে ব্যয় হচ্ছে ১০ হাজার ৯২১ কোটি টাকা।
 

MHR/MSI

এই বিভাগের আরো খবর

রাজধানীতে আবারো বেড়েছে বায়ু দূষণ

ফাহিম মোনায়েম: রাজধানীতে আবারো বাড়ছে...

বিস্তারিত
উড়োজাহাজের শহর!

অনলাইন ডেস্ক: শহরের নাম ক্যামেরন...

বিস্তারিত
ভাসানচরে স্থানান্তর হবে আরও ৮০ হাজার রোহিঙ্গা

শাহনাজ ইয়াসমিন: ডিসেম্বর মাসের মধ্যে...

বিস্তারিত
ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে রুলের নিস্পত্তি হয়নি

এজাজুল হক মুকুল: ডেঙ্গু নিয়ন্ত্রণে...

বিস্তারিত
প্রস্তুতি শেষ, কাল খুলছে স্কুল-কলেজ

ফাহিম মোনায়েম: দীর্ঘ অপেক্ষার...

বিস্তারিত
'স্বপ্নের সেতু যেন প্রমত্তা পদ্মার মুকুট'

পার্থ রহমান: পদ্মা নদীর এক প্রান্তে...

বিস্তারিত
ভাটারায় পানিবন্দি মানুষের চরম দুর্ভোগ

মাবুদ আজমী: ছয় মাস ধরে পানিবন্দি...

বিস্তারিত
শ্রেণীকক্ষে পাঠদানের প্রস্তুতি চলছে

নিজস্ব প্রতিবেদক: পুরোদমে স্কুল...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *