ভোট কেন্দ্রে গোপন কক্ষের নিরাপত্তা বাড়ছে

প্রকাশিত: ১০:১৪, ২৬ অক্টোবর ২০২১

আপডেট: ১০:১৪, ২৬ অক্টোবর ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক : ভোট কেন্দ্রে গোপন কক্ষের নিরাপত্তা আরো বাড়াতে কাঠামোগত পরিবর্তন আনার পরিকল্পনা করছে নির্বাচন কমিশন। মঙ্গলবার বিকেলে এক অনির্ধারিত সভায় নির্বাচন কমিশনাররা এবিষয়ে আলোচনা করেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনারের সভাপতিত্বে সভায় অন্যান্য নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশন সচিবালয়ের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এসময়, কাপড় ও বোর্ড দিয়ে বানানো চারটি গোপন কক্ষের নমুনা উপস্থাপন করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করে নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বৈশাখী টেলিভিশনকে জানান, নির্বাচনের সময় গোপন কক্ষগুলো বেঞ্চ দিয়ে বা কাপড় দিয়ে বানানো হতো। অনেকক্ষেত্রে এধরণের কক্ষে গোপনীয়তা রক্ষা করা সম্ভব হয়না। তাই গোপন কক্ষের একটি নিরাপদ ও স্থায়ী রূপ দিতেই এমনটা পরিকল্পনা করছে কমিশন। 

এদিকে, গতকাল সোমবার এক অনির্ধারিত বৈঠকে পোস্টাল ব্যালটের পাশাপাশি অনলাইন ব্যালটে ভোট প্রদান নিয়ে আলোচনা হয়েছে। একজন ভোটার দ্রুততম সময়ে যেন ভোট প্রদান করতে পারেন সেজন্য অনলাইন ব্যালটের প্রচলন করা যায় কি না তা ভাবছে নির্বাচন কমিশন। এবিষয়ে নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বলেন, পোস্টাল ব্যালটকে আরো যুগোপযোগী করতে অনলাইন ব্যালটের কথা ভাবছে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচন প্রক্রিয়ার সংক্ষিপ্ত সময়ের মধ্যে পোস্টাল ব্যালটে কিভাবে আরো কার্যকরভাবে ভোট গ্রহণ করা যায় তা ভেবে দেখা হচ্ছে। বিষয়টি এখনো আলোচনার পর্যায়ে আছে বলেও জানান তিনি। 

অন্যদিকে, একই বৈঠকে গণপ্রতিনিধিত্ব আদেশে প্রার্থীদের বিল বা ঋণ পরিশোধের বিষয়ে সংশোধনী আনার নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। সংশোধনীতে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার আগের দিন বিল ও ঋণ পরিশোধ করলে প্রার্থীরা সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন। যা বর্তমানে ৭ দিন পূর্বে পরিশোধ করার কথা বলা আছে। সংসদ নির্বাচন ছাড়া অন্যান্য নির্বাচনে মনোনয়নপত্র জমা দেয়ার আগের দিনের মধ্যে ঋণ বা বিল পরিশোধ করার সুযোগ দেয়া আছে প্রার্থীদের। নির্বাচন কমিশনের অতিরিক্ত সচিব অশোক কুমার দেবনাথ বৈশাখী টেলিভিশনকে জানান, অনেক্ষেত্রেই ঋণ বা বিল খেলাপীদের প্রার্থীতা বাতিলের পর আদালতের নির্দেশে আবারও প্রার্থীতা ফিরে পান অনেকে। নির্বাচনের আগে শেষ মুহুর্তে প্রার্থীতা ফিরে পেলে নির্বাচন কমিশন কম সময়ের মধ্যে ব্যালট ছাপিয়ে ভোটগ্রহণ করতে চাপে পড়ে। এছাড়া নির্বাচন কমিশনের কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে তিনি জানান, আরপিওতে একদিন উলে­খ থাকার কথা থাকলেও টাইপিং মিসটেকের জন্য ৭ দিন হয়েছে।

KFA/JP

এই বিভাগের আরো খবর

আইভির সাথে লড়তে চান দুই বিএনপি নেতা

নারায়ণগঞ্জ সংবাদদাতা: নারায়ণগঞ্জ...

বিস্তারিত
নৌকার পরাজয়ের পেছনে অভ্যন্তরীণ কোন্দল!

নিজস্ব সংবাদদাতা: ইউনিয়ন পরিষদ...

বিস্তারিত
নারায়ণগঞ্জ সিটি নির্বাচনের ভোট ১৬ই জানুয়ারি

নিজস্ব প্রতিবেদক: আগামী ১৬ই জানুয়ারি...

বিস্তারিত
নির্বাচনী সহিংসতায় পাঁচ জেলায় সাতজনের মৃত্যু

নিজস্ব সংবাদদাতা: তৃতীয় ধাপের ইউনিয়ন...

বিস্তারিত
বিক্ষিপ্ত ঘটনায় শেষ হলো তৃতীয়ধাপের ভোট

ডেস্ক প্রতিবেদন: দু’একটি বিক্ষিপ্ত...

বিস্তারিত
পঞ্চম ধাপে ৭০৭ ইউনিয়নে ভোট ৫ই জানুয়ারি

নিজস্ব প্রতিবেদক: চলমান ইউনিয়ন পরিষদ...

বিস্তারিত
আগামীকাল তৃতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচন

ডেস্ক প্রতিবেদন: তৃতীয় ধাপে দেশের এক...

বিস্তারিত
চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচন তিনদিন পেছালো 

নিজস্ব প্রতিবেদক: এইচএসসি পরীক্ষার...

বিস্তারিত

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *