আন্তর্জাতিক সমুদ্র পরিবহনে দেশে দক্ষ জনবলের অভাব

প্রকাশিত: ০২:১৪, ২১ নভেম্বর ২০২১

আপডেট: ০৩:৪৫, ২১ নভেম্বর ২০২১

মেহের মণি: ৫০ বছরেও আন্তর্জাতিক সমুদ্র পরিবহণ খাতে বাংলাদেশের দক্ষ জনবল খুব বেশি তৈরি হয়নি। আন্তর্জাতিক সমুদ্র পরিবহন পথে ৫৫ হাজার জাহাজ চলে, যেখানে কাজ করেন সাড়ে ১৬ লাখ নাবিক ও অফিসার। এর মধ্যে বাংলাদেশি মাত্র সাড়ে ১৫ হাজার। যা মোট জনশক্তির ১ শতাংশেরও কম। সংশ্লিষ্টরা বলছেন, একজন সমুদ্রচারী ৮ জন প্রবাসী শ্রমিকের সমান অর্থ আয় করেন। অথচ যথাযথ সরকারী উদ্যোগের অভাবে এই খাতের বিকাশ হয়নি।

আন্তর্জাতিক সমুদ্র পথে পণ্য ও যাত্রী পরিবহন করে ৫৫ হাজার জাহাজ। যার মধ্যে বাংলাদেশি পতাকাবাহী জাহাজ রয়েছে ৭০টি। বর্তমানে বছরে গড়ে ৪০ কোটি ডলার বিদেশী মুদ্রা আয় হয় এখাত থেকে। জাহাজের নাবিক কিংবা ডেক অফিসার হিসেবে কাজ করাটা একদিকে যেমন মর্যাদার অন্যদিকে রয়েছে উচ্চ আয়ের সুযোগ।

আন্তর্জাতিক সমুদ্র পরিবহণ খাতের জনশক্তির প্রায় পুরোটাই চীন, রাশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, ইউক্রেন, ভারত ও ফিলিপিন্সের দখলে। বাংলাদেশের অবস্থান এখানে ১ শতাংশেরও কম। সম্ভাবনাময় এই খাতে নজর না দেয়ায় গত ৫০ বছরেও তেমন একটা দক্ষ জনশক্তি গড়ে তুলতে পারেনি বাংলাদেশ।

বর্তমানে ৫টি সরকারি এবং ৮টি বেসরকারি মেরিন একাডেমি চালু রয়েছে দেশে। মান রক্ষা করতে না পারায় ইতিমধ্যে বেশকিছু বেসরকরি মেরিন একাডেমি বন্ধ হয়ে গেছে। আবার যোগদানের সময় কেউ কেউ জাল সার্টিফিকেট দেয়ায় বাংলাদেশের ভাবমুর্তি নষ্ট হয়েছে।

এ খাতের উন্নয়নে সরকার বেশ কিছু পদক্ষেপ নিয়েছে। এসব পদক্ষেপ বাস্তবায়ন হলে বছরে গড়ে ৯’শ মেরিনার গ্রাজুয়েশন শেষ করে কাজে যোগ দেবার সুযোগ পাবেন।

0 মন্তব্য

আপনার মতামত প্রকাশ করুন

মন্তব্য প্রকাশ করুন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না. প্রয়োজনীয় ক্ষেত্রগুলি চিহ্নিত করা আছে *

loading...
loading...