হাওর অঞ্চলে শুষ্ক মৌসুমে জমে কুস্তি খেলা

প্রকাশিত: ২৮-১১-২০২১ ০৯:২১

আপডেট: ২৫-০১-২০২২ ০৯:৫৮

সুনামগঞ্জ সংবাদদাতা: শুষ্ক মৌসুম আসলেই সুনামগঞ্জের গ্রামীণ জনপদে জমে ওঠে ঐতিহ্যবাহী কুস্তি খেলা। সম্প্রীতি আর পারস্পারিক সৌহার্দ্যপূর্ণ পরিবেশ অটুট রাখার এই প্রয়াস শতবছরের পুরনো। যেখানে শারীরিক শ্রেষ্ঠত্ব প্রমাণের মাধ্যমে দর্শকদের মনোরঞ্জন করে থাকেন কুস্তিগিররা।

হাত উচিয়ে শক্তির জানান দিতে মাঠে নামছে কুস্তিগিররা। শতশত দর্শক দেখার অপেক্ষায়, কে হবে বিজয়ী। হাওরবেষ্টিত জেলা সুনামগঞ্জের গ্রামীণ জনপদে শুষ্ক মৌসুমে কুস্তি খেলার এমন আয়োজন করা হয়। বিশেষ করে সুনামগঞ্জ সদর, দক্ষিণ সুনামগঞ্জ, বিশ্বম্ভরপুর, জামালগঞ্জ ও তাহিরপুর উপজেলায় এই খেলার প্রচলণ বেশি।

এক গ্রাম অন্যগ্রামের মানুষদের আমন্ত্রণ করে আয়োজন করে খেলার। আগের রাতে প্রতিপক্ষকে আপ্যায়ন করে স্বাগতিক গ্রামের মানুষ। পরদিন দুই দলের শতাধিক কুস্তিগির খেলায় অংশ নেয়। দিনব্যাপী এই আয়োজন দেখতে জড়ো হয় আশেপাশের এলাকার হাজারো মানুষ।

একদিকে কুস্তিগিরদের শীরিরীক শ্রেষ্ঠত্বের লড়াই, অন্যদিকে উপস্থিত দর্শকদের মুহূর্মুহূ করতালিতে মুখরিত হয় খেলাপ্রাঙ্গণ। শত বছর ধরেই এভাবেই সম্প্রীতি আর সৌহার্দ্য রক্ষা করে আসছে কুস্তি খেলার এই আয়োজন।

করোনার কারণে গত দুই বছর এই খেলার আয়োজন কম ছিলো। তবে এবার বড় পরিসরেই আয়োজনের প্রস্তুতি নিয়েছে জেলা ক্রীড়া সংস্থা।

তবে, গ্রামীণ এই খেলাকে বাঁচিয়ে রাখতে সারকারের পৃষ্ঠপোষকতা প্রয়োজন বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

/admiin