ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় দক্ষিণ আফ্রিকার নিন্দা

প্রকাশিত: ২৯-১১-২০২১ ১০:১০

আপডেট: ২৫-০১-২০২২ ০৯:৫৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: ওমিক্রন শনাক্তের পর দক্ষিণ আফ্রিকার দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে বেশ কয়েকটি দেশ। তবে এই ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপের কঠোর নিন্দা জানিয়েছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা। এমন পদক্ষেপকে অন্যায় আখ্যা দিয়ে অবিলম্বে তা প্রত্যাহার করে নেয়ার আহŸান জানিয়েছেন তিনি।

প্রথম ওমিক্রন শনাক্ত করার কথা বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থাকে গত বুধবার জানায় দক্ষিণ আফ্রিকা। প্রাথমিক প্রমাণ বলছে এই ভ্যারিয়েন্টটির পুনরায় সংক্রমিত করার শক্তি অনেক বেশি। দক্ষিণ আফ্রিকার সবচেয়ে জনবহুল প্রদেশ গৌতেং-এ গত দুই সপ্তাহে সংক্রমিত মানুষের বেশিরভাগই ওমিক্রনে আক্রান্ত। দেশটির সবগুলো প্রদেশেই ওমিক্রনের সংক্রমণ ধরা পড়েছে।

এই পরিস্থিতিতে দক্ষিণ আফ্রিকান দেশগুলোর ওপর ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা দেশ ও জোটগুলোর মধ্যে রয়েছে যুক্তরাজ্য, ইউরোপীয় ইউনিয়ন এবং যুক্তরাষ্ট্র।

নিষেধাজ্ঞার বিষয়ে রোববার দক্ষিণ আফ্রিকার প্রেসিডেন্ট সিরিল রামাফোসা বলেন, ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা আরোপের কোনও বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই এবং আফ্রিকার দক্ষিণাঞ্চলের দেশগুলোর অন্যায় বৈষম্যের শিকার হচ্ছে।

ওমিক্রনের বিস্তার ঠেকাতে এই নিষেধাজ্ঞা কোনও কাজে আসবে না বলেও মন্তব্য করে সিরিল রামাফোসা বলেন, ‘ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার ফলে আক্রান্ত দেশগুলো অর্থনীতির আরও ক্ষতি হবে। মহামারি মোকাবিলায় তাদের সামর্থ্য আরও অবজ্ঞা করা হবে। ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা অবিলম্বে প্রত্যাহার করার তাগিদ দিয়েছেন তিনি।

ওমিক্রনের আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ছে বিশ্বজুড়ে। এরইমধ্যে বেশ কয়েকটি দেশে এই ধরন শনাক্ত হয়েছে। ফ্রান্সে সম্ভাব্য ৮ জনের শরীরে ওমিক্রন পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। খুব শিগগিরই বিধি-নিষেধ আরোপ করতে যাচ্ছে ফ্রান্স সরকার।

/admiin