‘রংপুর সাহিত্য পরিষদ’ সাহিত্য চর্চার বাতিঘর 

প্রকাশিত: ০৪-১২-২০২১ ১৮:১৬

আপডেট: ২৫-০১-২০২২ ০৯:৫৮

রংপুর সংবাদদাতা: রংপুর সাহিত্য পরিষদের ১১৬ বছর পূর্তিতে অনুষ্ঠিত হচ্ছে বিভাগীয় সাহিত্য সম্মেলন। সারাদেশের লেখকদের অংশগ্রহণে যা প্রাণবন্ত হয়ে উঠেছে। উদ্বোধনী আয়োজনে সাহিত্যের জীবনমুখিনতা ও বি¯তৃত পরিসরে এর প্রভাব তুলে ধরেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিম। অনুষ্ঠানে ৫ গুণীজনকে সম্মাননা জানানো হয়। ১৮৯৩ সালে কলকাতায় প্রতিষ্ঠিত হয় ‘‘বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষৎ। পরে এর কর্মপরিধি ছড়িয়ে দেয়ার প্রস্তাব দেন পরিষদের অন্যতম নেতা কবি গুরু রবীন্দ্র নাথ ঠাকুর। এই প্রস্তাবের ধারাবাহিকতায় ১৯০৫ সালে রংপুরে স্থাপন করা হয় পরিষদের প্রথম শাখা। নামকরণ করা হয় ‘রঙ্গপুর সাহিত্য পরিষৎ। এর ১১৬তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীকে আয়োজন করা হয়েছে এই সাহিত্য সম্মেলনের। উদ্বোধনী আয়োজনে প্রধান অতিথি ছিলেন বিচারপতি এম এনায়েতুর রহিম। তিনি বলেন, সুখদুঃখ, হাসিকান্না, ব্যথাবেদনা, দ্বন্দ্ব-সংঘাত সবই সাহিত্যের উপজীব্য। বিচারকদের রায়ে এর প্রতিফলন ঘটে বলে তারও সাহিত্য মূল্য রয়েছে। অনুষ্ঠানে পাঁচ গুণীজনকে সন্মাননা স্মারক প্রদান করা হয়। তারা হলেন- মরহুম অধ্যাপক মুহম্মদ আলীম উদ্দিন, স্বাধীনতা পদক প্রাপ্ত শব্দ সৈনিক আশরাফুল আলম, সিটি মেয়র মোস্তাফিজার রহমান মোস্তফা, ২১শে পদক প্রাপÍ খ্যাতিমান ফটো সাংবাদিক পাভেল রহমান, সোনালী ব্যাংকের এমডি ও সিইও আতাউর রহমান প্রধান ও বেসামরিক বিমান চলাচল এর প্রধান প্রকৌশলী আব্দুল মালেক।
রংপুর সাহিত্য পরিষদকে বাংলাদেশে প্রাতিষ্ঠানিক সাহিত্য চর্চার প্রথম বাতিঘর বলা হয়।

/admiin