উৎপাদন বাড়লেও বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থায় ত্রুটি

প্রকাশিত: ০৫-০৫-২০২২ ১৪:২৭

আপডেট: ০৫-০৫-২০২২ ১৫:৩৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: চাহিদার চেয়ে দেশে এখন বিদ্যুতের উৎপাদন ক্ষমতা বেশি। তারপরও গ্রামাঞ্চলে নিয়ম করে লোডশেডিং চলছে। শহরেও অনেক সময় বিদ্যুৎ থাকে না। এই ভোগান্তি সরকারের শতভাগ মানুষকে বিদ্যুৎ সুবিধা দেয়ার সাফল্য ম্লান করে দিচ্ছে। এখন কেন বিদ্যুৎ না পাওয়ার কষ্ট করতে হয় মানুষকে? এ প্রশ্নের উত্তরে সঞ্চালন লাইনের দোষ দেয় সংশ্লিষ্টরা। 

কাগজে কলমে গাইবান্ধা পুরোটা শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় এসেছে। বাস্তবে গাইবান্ধার গ্রামাঞ্চল এমনকি শহরেও দিনে রাতের অর্ধেক সময় বিদ্যুৎ থাকে না। একটু ঝড় বৃষ্টি হলে দুই থেকে তিন দিনেও বিদ্যুৎ আসে না এসব এলাকায়।

গত এক যুগে দেশে বিদ্যুতের গ্রাহক সংখ্যা যেমন বেড়েছে, তেমনি উৎপাদন ক্ষমতাও বেড়েছে। বর্তমানে সারাদেশে মোট গ্রাহক ৪ কোটি ২২ লাখ। চাহিদা রয়েছে প্রায় ১৫ হাজার মেগাওয়াট। বিদ্যুৎ উৎপাদনের সক্ষমতা প্রায় ২৫ হাজার মেগাওয়াট। চাহিদার চেয়ে ১০ হাজার মেগাওয়াট উৎপাদন ক্ষমতা বেশি থাকার পরেও লোডশেডিং থেকে মুক্তি পাচ্ছে না মানুষ।

বিদ্যুৎ কেন্দ্রের জন্য গ্যাসের চাহিদা রয়েছে ২ হাজার ২৫২ মিলিয়ন ঘনফুট। কিন্তু এখন সরবরাহ করা হচ্ছে এর অর্ধেক ১ হাজার ১১৪ মিলিয়ন ঘনফুট। শতভাগ মানুষের বিদ্যুতের ব্যবস্থা করা হলেও পুরনো সঞ্চালন ও বিতরণ লাইনের কারণে সরবরাহে বিঘ্ন ঘটছে।

FM/sharif