অবৈধ প্রায় এক হাজার হাসপাতাল-ক্লিনিক বন্ধ

প্রকাশিত: ৩০-০৫-২০২২ ১৯:৫৩

আপডেট: ৩০-০৫-২০২২ ২০:২৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: সারাদেশে অবৈধ হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত রেখেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সোমবার রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে জরিমানা এবং অবৈধ হাসপাতাল ও ক্লিনিক বন্ধ করে দেয়া হয়। তবে বন্ধ করে দেয়া হাসপতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারগুলো শর্তপূরণ করে খোলার আবেদন করা হলে, তা বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তারা। 

টানা তিন দিন ধরে সারাদেশে অবৈধ হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টারের বিরুদ্ধে অভিযান চালাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। এই সময়ের মধ্যে প্রায় এক হাজার বেসরকারি হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করা হয়েছে। 

আজ সোমবার (৩০শে মে) সকাল থেকে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায় ভোক্তা অধিকার ও স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। মোহাম্মদপুরে ভোক্তা অধিকার অধিদপ্তরের ভ্রাম্যমাণ টিম বেশ কয়েকটি হাসপাতাল পরিদর্শন করে। 

এ সময় মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ ও মানসম্মত পরিবেশ না থাকায় জরিমানা করা হয়। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সাথে সমন্বয় করে এই অভিযান চলবে বলে জানান ভোক্তা অধিকারের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফাহমিনা আক্তার। 

এদিকে, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অভিযানে যে সব হাসপাতাল, ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার বন্ধ করে দেয়া হয়েছে, সেগুলো শর্ত পূরণ করে আবেদন করলে আবারো খুলে দেয়ার বিষয়টি বিবেচনা করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক আহেমদুল কবীর। 

তবে অনিবন্ধিত ও অনিয়মের দায়ে দণ্ডিত প্রতিষ্ঠানগুলো আবার যেন চালু করতে না পারে সে জন্য এই অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি। 

 

AKA/joy