১০ দিন ধরে পানিবন্দি আসামের শিলচর

প্রকাশিত: ০১-০৭-২০২২ ১১:৩০

আপডেট: ০১-০৭-২০২২ ১৬:০৮

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: বন্যায় বিপর্যস্ত ভারতের আসাম রাজ্যের নদ-নদীগুলোতে আবারো বাড়ছে পানি। রাজ্যটির বন্যা পরিস্থিতি এখনও সংকটজনক। নতুন করে প্রাণ হারিয়েছে আরও আটজন। রাজ্যের ২৫টি জেলায় বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে ৩০ লাখেরও বেশি মানুষ। এদিকে, আবারও ভারী বৃষ্টিপাত ও টাইফুনের আশংকায় জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে চীনে। অন্যদিকে, তীব্র তাপদাহে বিপর্যস্ত জাপান ও হাঙ্গেরি।

বন্যায় বিপর্যস্ত ভারতের আসাম রাজ্যের জনজীবন। বৃহস্পতিবার ভারী বৃষ্টির কারণে বন্যা ও ভূমিধ্স আরও আটজনের মৃত্যু হয়েছে। এনিয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ১৫৯ জনে। টানা ১১ দিন ধরে পানিবন্দি শিলচর শহর। বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে ব্রহ্মপুত্র, বেকি, কপিলি, বরাক ও কুশিয়ারা নদীর পানি। বন্যায় রাজ্যটির ২৫ জেলার দুই হাজার ছয়শ' আটটি গ্রাম ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

এদিকে, ভারী বৃষ্টিতে সৃষ্ট ভূমিধসে ভারতের উত্তরপূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য মনিপুরের ননি জেলার একটি প্রত্যন্ত অঞ্চলে অন্তত ৮জন নিহত হয়েছে। বেশ কয়েকজনকে জীবিত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছে। তবে এখনও নিখোঁজ ৫০ জন। যারা মারা গেছেন বলে আশংকা করছে স্থানীয় প্রশাসন।

এছাড়া, বন্যায় বিপর্যস্ত চীনে আবারও টাইফুন এবং ভারী বৃষ্টিপাতের আশংকা করছে দেশটির আবহাওয়া বিভাগ। গুয়াংডং, গুয়াংজি এবং হাইনান প্রদেশে চার স্তরের জরুরি সতর্কতা জারি করেছে কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে, গরমে অতিষ্ঠ হাঙ্গেরির রাজধানী বুদাপেস্টের বাসিন্দারা। প্রায় ৪০ ডিগ্রী সেলসিয়াস তাপমাত্রা সেখানে। শহরটির তিন হাজার মানুষ সুপেয় পানির সংকটে রয়েছে। 

চলতি সপ্তাহে জাপানের রাজধানী টোকিওর তাপমাত্রা দুইবার চল্লিশ ডিগ্রির উপরে ছিলো। যা দেড়শ’ বছরের রেকর্ড ভেঙেছে। প্রচন্ড গরমে হিটস্ট্রোকের শিকার হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসা নিচ্ছে শত শত মানুষ।

shamima/ramen