রাঙ্গাবালীতে খাল দখল নিয়ে সংঘর্ষ, আহত ১০

প্রকাশিত: ০১-০৭-২০২২ ২২:৩৭

আপডেট: ০১-০৭-২০২২ ২২:৩৭

পটুয়াখালী সংবাদদাতা: পটুয়াখালীর রাঙ্গাবালী উপজেলায় মাছ ধরার জন্য খাল দখল করাকে কেন্দ্র করে উপজেলা আওয়ামী লীগ ও শ্রমিক লীগ নেতাকর্মীদের মধ্যে সংঘর্ষ হয়েছে। এতে উভয়পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়েছে। শুক্রবার (পহেলা জুলাই) সকালে উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়নের নয়াভাঙ্গুনী খাল সংলগ্ন এলাকায় সংঘর্ষের ঘটনায় এ পর্যন্ত ৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয় সূত্র জানায়, গত দুই বছর ধরে ওই ইউনিয়নের নয়াভাঙ্গুনী নামক খালটি উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রওশন মৃধার লোকজন ভোগদখল করে আসছিল। তাদের দাবি, জেলা প্রশাসন থেকে খালটি তিন বছরের জন্য ইজারা নিয়েছেন তারা, আরও এক বছর তাদের মেয়াদ আছে। 

কিন্তু কিছুদিন ধরে উপজেলার ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি কামরুজ্জামান শিবলীর লোকজন খালটি দখল করে মাছ ধরার চেষ্টা করছিল। এনিয়ে আওয়ামী লীগ ও শ্রমিকলীগ নেতার মধ্যে বিরোধ চলছিল। শুক্রবার (পহেলা জুলাই) খাল দখল করতে গিয়ে শ্রমিক লীগ নেতা রওশন ও আওয়ামী লীগ নেতা শিবলীর লোকজনের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। 

প্রায় একঘন্টার সংঘর্ষে দু'পক্ষের অন্তত ১০ জন আহত হয়। তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে গুরুত্বর আহত পাঁচজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। 

উপজেলা শ্রমিক লীগের সভাপতি রওশন মৃধা বলেন, ‘তিন বছরের জন্য খালটি লিজ (ইজারা) নিয়েছি আমরা। এখনও প্রায় এক বছর আছে। কিন্তু ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক শিবলীর লোকজন খালটি দখলের জন্য লাঠিসোটা নিয়ে শ্রমিক লীগের নেতাকর্মীদের ওপর অতর্কিত হামলা চালায়। 

এ হামলায় আমাদের ছয়জন লোক আহত হয়। তাদের মধ্যে গুরুত্বর আহত রনি মুন্সী, মিরাজ মুন্সি, রেজাউল মৃধা, রুমান মাতুব্বর ও কলি বেগমকে চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী পাঠানো হয়েছে। এদিকে ছোটবাইশদিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান শিবলী বলেন। এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না।  

এ ব্যাপারে রাঙ্গাবালী থানার অফিসার ইনচার্জ মো. নুরুল ইসলাম মজুমদার বলেন, ‘সংঘর্ষে একপক্ষের ছয়জন আহত হয়েছে। তাদের আটক করা হয়েছে। এ বিষয়ে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা  হবে।’  

lamia/sharif