মেহেরপুরের ‘ব্ল্যাক বেঙ্গল’ চাহিদার শীর্ষে

প্রকাশিত: ০৭-০৭-২০২২ ০৮:৩৬

আপডেট: ০৭-০৭-২০২২ ১১:৪০

ডেস্ক প্রতিবেদন: কোরবানির ঈদকে সামনে রেখে জমে উঠেছে মেহেরপুরের সুপরিচিত ‘বারাদি ছাগলের হাট’। দেশের বিভিন্ন জেলার ব্যবসায়ীরা এই হাট থেকে ছাগল কিনে নিয়ে যাচ্ছেন। এবছর হাটে ছাগলের সরবরাহ বেশি হলেও ক্রেতা কম। বিক্রেতারা বলছেন, বন্যার প্রভাব পড়েছে এবারের হাটে। তাই দুশ্চিন্তায় খামারী ও ব্যবসায়ীরা। এদিকে, শরীয়তপুরের বিভিন্ন স্থানে জমে উঠেছে কোরবানির পশুর হাট।

বৃহত্তর কুষ্টিয়া অঞ্চলে ছাগলের সবচেয়ে বড় হাট বসে মেহেরপুর সদরের বারাদিতে। এখানকার দেশীয় প্রজাতির ‘ব্ল্যাকবেঙ্গল’ ছাগলের মাংস স্বাদে অতুলনীয় হওয়ায় এর কদর দেশজুড়ে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ব্যবসায়ীরা ভিড় করেন, এই ছাগলের হাটে।

কোরবানির ঈদের বাকি আছে আর মাত্র ক’দিন। তাই জমে উঠেছে এই হাট। পর্যাপ্ত সংখ্যক ছাগলও এসেছে বারাদি হাটে। ১০ হাজার থেকে শুরু করে সর্ব্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকা দামের ছাগল মিলছে এই হাটে। তবে ক্রেতার সংখ্যা কম বলে জানালেন বিক্রেতারা। আর ক্রেতারা বলছেন, অন্যান্য বছরের তুলনায় দাম একটু বেশি।

বন্যার কারণে এবার ছাগলের বেচাকেনা কম হচ্ছে বলে জানালেন হাটের ইজারাদার।

এদিকে, ঈদকে সামনে রেখে শরীয়তপুরে পশুর হাটগুলো জমে উঠেছে। এখানকার পশু দিয়ে স্থানীয় চাহিদা মেটানোর পাশাপাশি নিয়ে যাওয়া হচ্ছে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে। অনাকাঙ্খিত ঘটনা এড়াতে পর্যাপ্ত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে হাটগুলোয়। 

AR/ramen