লোডশেডিংয়ে শিশু ও শিক্ষার্থীদের বেশি কষ্ট

প্রকাশিত: ২২-০৭-২০২২ ১৪:১৮

আপডেট: ২২-০৭-২০২২ ১৬:১৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: ছুটির দিনে পূর্ব ঘোষিত সময় অনুসারে রাজধানীতে এলাকাভিত্তিক লোডশেডিং কার্যকর হচ্ছে। তবে কোথাও কোথাও নির্ধারিত সময়ের চাইতে বেশি সময় থাকছে না বিদ্যুত। গরমের মাঝে বাড়ছে ভোগান্তি। বিদ্যুৎ সংকটের কারণে বেশী সমস্যায় পড়েছে শিক্ষার্থী ও শিশুরা। সারাদেশের চিত্রও অনেকটা একই রকম। 

রাজধানীর শংকর এলাকার বাসিন্দা আশরাফ আলী তুহিন। তার দুই সন্তানের একজন এবছর উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থী। একমাস পরেই পরীক্ষা। কিন্তু লোডশেডিংয়ের কারণে প্রস্তুতিতে ব্যাঘাত ঘটছে। বিদ্যুৎ না থাকায় হাত পাখা দিয়েই সন্তানকে বাতাস করে পড়ালেখা চালিয়ে নেয়ার চেষ্টা করছেন এই পিতা।

দিনে একঘন্টা করে বিদ্যুৎ না থাকার কথা বলা হলেও কোথাও কোথাও নির্ধারিত সময়ের চাইতে বেশি সময় ধরে চলে লোডশেডিং। শিশু ও শিক্ষার্থীদের সমস্যা হচ্ছে বেশি।   

ছুটির দিনে বাড়িতে থাকে অনেক বাড়তি কাজ। লোডশেডিং এর কারণে সেসব কাজ ব্যাহত হচ্ছে। অনেককে তীব্র গরমে বাসায় টিকতে না পেরে খোলা যায়গায় সময় কাটাতে দেখা যায়।  সেই সাথে উৎপাদন বিঘিœত হওয়ায় বিপাকে পড়েছে স্বল্প পুঁজির ব্যবসা প্রতিষ্ঠানগুলো।

তবে বাস্তবিক কারণে এই সংকট মেনে নেয়ারও মনোভাব পোষণ করেছেন অনেকে। লোডশেডিংয়ের কারণে সারাদেশে একই ধরণের চিত্র দেখা যাচ্ছে।

MRP/sharif