কেমন আছে বিস্ময়করভাবে জন্ম নেয়া শিশুটি!

প্রকাশিত: ০৩-০৮-২০২২ ১৫:২৭

আপডেট: ০৩-০৮-২০২২ ১৫:২৭

রীতা নাহার: সড়ক দুর্ঘটনায় মায়ের মৃত্যুর সময় বিস্ময়করভাবে জন্ম নেয়া ছোট্ট শিশু ফাতেমা এখন ছোটমনি নিবাসে। এখানেই সবার আদর আর মমতায় কাটছে তার দিনরাত্রি। অন্য কোনও অভিভাবকের দায়িত্বে নয়, ফাতেমাকে ভবিষ্যতে তার পরিবারেই ফিরিয়ে দেয়া হবে। শিশুদের কলকাকলিতে মুখর ছোটমনি নিবাস অভিভাবকহীন শিশুদের এক অনন্য ঠিকানা।

বয়স ১৭দিন পার হলো। ছোটমনি নিবাসে আশ্রয় পাওয়া এই শিশুটির দিনরাত্রির বেশির ভাগ সময় কাটে ঘুমিয়ে। ঘুম ভাঙলেই আড়মোড়া দিয়ে জেগে ওঠে। কান্নার শব্দ জানিয়ে দেয় তার  প্রয়োজনের কথা। ফিডার মুখে আবার নিশ্চিন্ত ঘুম।

ময়মনসিংহের ত্রিশালে সড়ক দুর্ঘটনায় মায়ের মৃত্যুর সময়জন্ম নেওয়া শিশু ফাতেমা খাতুনের ছোট্ট হাতে প্লাস্টার আছে এখনও। তবে বড় ধরনের কোনও সমস্যা নেই বলে জানিয়েছেন সংস্থার উপতত্ত¡াবধায়ক জুবলি বেগম রানু।

ঢাকার আজিমপুরে সরকারি প্রতিষ্ঠান ছোটমনি নিবাসে আশ্রয় পাওয়া শিশুদের অধিকাংশই দাবিদারহীন, অভিভাকহীন। নবজাতক হিসেবে এখানে এসেছে তারা। বেড়ে উঠেছে একসাথে হাসিআনন্দে। চোখের ক্যান্সার নিয়ে খাদিজা আর অটিজম নিয়ে ফাতেমা বেড়ে উঠছে এই আপনজনদের ভালোবাসায়। তাদের চিকিৎসাও চলছে।

এখানে ৭ বছর বয়স পর্যন্ত শিশুদের দেখভাল করা হয়। শিক্ষার হাতেখড়িও হয় এখানে। ৭ বছরের পার পাঠানো সরকারি শিশু পরিবারে। আবার ছোটমনি নিবাস থেকেই অনেক নবজাতক নতুন পরিবারে নতুন বাবা মায়ের কাছে পায় নতুন ঠিকানা।  এজন্যও রয়েছে সুনির্দিষ্ট আইনী প্রক্রিয়া বলে জানান জুবলি বেগম রানু।

সমাজ সেবা অধিদপ্তরের অধীন ছোটমনি নিবাসের একশো আসনের এই সরকারি  বেবিহোমে বর্তমানে আছে ২৮টি শিশু।

 

KNR/joy