চাকরি নেই, কিন্তু বরখাস্ত হলেন!

প্রকাশিত: ০৫-০৮-২০২২ ১৬:০৩

আপডেট: ০৫-০৮-২০২২ ১৬:৩২

তারেক সিকদার: কাগজে কলমে সাদ্দাম হোসেন রেলওয়ের কোন গেইট কিপারই নন। অথচ গত শুক্রবার মীরসরাই রেল ক্রসিংয়ে মাইক্রোবাস ও ট্রেনের মর্মান্তিক দুর্ঘটনায় ১১ জন নিহতের পর সেখানের গেইটকিপার হিসেবে তাকে বরখাস্ত করেছে রেল কর্তৃপক্ষ। আর পুলিশ তাকে গেইটকিপার হিসেবে দায়ী দেখিয়ে গ্রেফতার করেছে। বৈশাখী টেলিভিশনের বিগত কয়েকদিনের অনুসন্ধানে এসব তথ্য বেরিয়ে এসছে। তবে রেল কর্তৃপক্ষের সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কেউ এ বিষয়ে স্পষ্ট ব্যাখ্যা না দিয়ে একে অন্যের ওপর দায় চাপাচ্ছেন।

রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের একটি প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হয়েছে গত ৩০ শে জুন। যার নাম পূর্বাঞ্চল লেভেল ক্রসিং গেইটসমূহের পুনর্বাসন ও মান উন্নয়ন প্রকল্প। সেই প্রকল্পের অধীনে সাদ্দাম হোসেন মীরসরাই রেল ক্রসিংয়ে গেইটকিপার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন। গত ৩০শে জুন প্রকল্পটির মেয়াদ শেষ হবার পর সাদ্দাম হোসেনের গেইট কিপারের দায়িত্বও শেষ হয়ে যায়। তারপর জুলাইয়ের এক তারিখ থেকে আর কাউকেই গত শুক্রবারের দুর্ঘটনাস্থল মীরসরাইয়ের রেল ক্রসিংয়ে গেইটকিপার হিসেবে নিয়োগ দেয়া হয়নি। ফলে সাদ্দাম হোসেনও দুর্ঘটনার দিন ২৯ শে জুলাই সেই রেল ক্রসিংয়ের গেইটকিপার হিসেবে কোন আনুষ্ঠানিক দায়িত্বে ছিলেন না। তবুও রেল কর্তৃপক্ষ কেন সাদ্দামের ওপর দায় চাপিয়ে তাকে বরখাস্ত করলো, তা নিয়ে কেউ স্পষ্ট কিছু বলেননি।

চট্টগ্রামের রেলওয়ে পুলিশ যারা সাদ্দামকে গ্রেফতার করেছে রেলের গেইটকিপার হিসেবে তারাও নিশ্চিত নন, সাদ্দাম গেইটকিপার কিনা?

পুরো বিষয়টি অস্পষ্ট ও ধোঁয়াশা হয়ে উঠলে বৈশাখীর অনুসন্ধানে জানা যায় মীরসরাই রেল ক্রসিংটিতে গত পহেলা জুলাই থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে কোন গেইটকিপার নিয়োগ না দিয়েই রেল কর্তৃপক্ষ দায়সারাভাবেই ক্রসিংটি পরিচালনা করতে থাকে। তারা প্রকল্প শেষ হয়ে গেলেও সাদ্দামকে কোন ধরণের নিয়োগ ও আনুষ্ঠানিক দায়িত্ব দেয়া ছাড়া সাদ্দামের ওপরই ভরসা রাখে রেল ক্রসিংয়ের মত স্পর্শকাতর স্থানের কার্যক্রম পরিচালনার জন্য। 

রেল ক্রসিং নিয়ে রেলওয়ে কর্তৃপক্ষের এমন উদাসীন ও অপেশাদারী কার্যক্রম বেরিয়ে আসলেও মীরসরাইয়ের দুর্ঘটনার পর রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন নিজেদের কোন দায় স্বীকার না করে দোষ চাপিয়ে দিয়েছিলেন সরকারের অন্য বিভাগগুলোর ওপর।

 

TH/shimul