শেখ কামাল: দেশে আধুনিক ফুটবলের প্রবর্তক

প্রকাশিত: ০৫-০৮-২০২২ ১৯:৪৩

আপডেট: ০৫-০৮-২০২২ ১৯:৪৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে ক্রীড়াঙ্গনে আধুনিকতার ছোঁয়া এনে দিয়েছিলেন শেখ কামাল। তাঁর হাত ধরেই ১৯৭২ সালে প্রতিষ্ঠিত হয়েছিলো আবাহনী ক্রীড়াচক্র। সদ্য স্বাধীন  দেশে আবাহনী ক্রীড়া চক্র সেই সময় ইউরোপের কোচ এনে সকলকে তাক লাগিয়ে দিয়েছিলো শেখ কামাল।

ফুটবল, ক্রিকেট তথা দেশের ক্রীড়াঙ্গন নিয়ে ছিলো শেখ কামালের তাঁর সুদূর প্রসারী চিন্তাভাবনা। স্বল্প সময়েই যা আশার আলো দেখিয়েছিলো। আজ (৫ আগস্ট) শেখ কামালের ৭৩তম জন্মদিন।  মাত্র ২৬ বছর বয়সে, ১৯৭৫-এ ঘাতকের বুলেটে স্বপরিবারের নিহত এই ক্রীড়া ব্যক্তিত্বের স্বপ্ন এখনো বাস্তবে রূপ পায়নি।

ছোটবেলা থেকেই খেলাধুলা ছিলো শেখ কামালের ভালোবাসা ও নেশা। বড় হয়েও খেলার প্রতি তার ভালোবাসা এতটুকু কমেনি। ১৯৭১ সালে রণাঙ্গনে লড়েছেন স্বাধীন বাংলাদেশের মানচিত্রের জন্য। বাংলাদেশের জন্ম হওয়ার পর, দেশ গড়ার পাশাপাশি শেখ কামাল স্বপ্ন দেখতে থাকেন ক্রীড়াঙ্গন নিয়ে। তাঁর স্বপ্ন ছিলো যুদ্ধ বিধ্বস্ত বাংলাদেশ সুনাম কুড়াবে ক্রীড়াক্ষেত্রে, উজ্জ্বলতা ছড়াবে বলে মনে করেন বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনের সভাপতি কাজী সালাউদ্দিন ও আবাহনী ক্রীড়া  চক্রের  প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক হারুনুর রশিদ।

একটি আধুনিক ক্রীড়া ক্লাব গঠন করার পরিকল্পনাও ছিলো শেখ কামালের। যেখানে ফুটবল, ক্রিকেট, হকিসহ নানা ধরণের খেলার চর্চা হবে। খেলোয়াড়রা নিজেদের তৈরী করার পাশাপাশি পারফরম্যান্স দিয়ে প্রতিভা ছড়াতে পারবেন বলে জানালেন বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক রকিবুল হাসান ও স্বাধীনবাংলা ফুটবল দলের ম্যানেজার তানভীর মাজহার তান্না।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বড় ছেলে শেখ কামাল একজন সুদূর প্রসারী ক্রীড়া সংগঠক হিসেবে যে পরিকল্পনা করেছিলেন, সেই পথ ধরেই এগুচ্ছে দেশের ক্রীড়াঙ্গন। ১৯৯৮ সালে তাঁকে দেয়া হয় মরণোত্তর জাতীয় ক্রীড়া পুরষ্কার।

 

SMS/shimul