নারী চিকিৎসককে হত্যার রহস্য উন্মোচন

প্রকাশিত: ১২-০৮-২০২২ ২০:০৮

আপডেট: ১২-০৮-২০২২ ২১:০০

নিজস্ব প্রতিবেদক : রাজধানীর পান্থপথে আবাসিক হোটেলে এক নারী চিকিৎসককে গলাকেটে হত্যার রহস্যে উন্মোচন করেছে র‌্যাব। একাধিক নারীর সাথে সম্পর্কে স্ত্রী জান্নাতুল নাঈম সিদ্দিকী বাধা দেয়ায় তাকে হত্যা করে স্বামী রেজাউল করিম। গতরাতে চট্টগ্রামের মুরাদপুর থেকে রেজাউলকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। ২০২০ সালের পরিবারকে না জানিয়ে বিয়ে করেন জান্নাতুল ও রেজাউল। এরপর নিজেদের মধ্যে নানা বিষয় নিয়েই ঝগড়া চলছিলো।

জন্মদিন উদযাপনের কথা বলে পান্থপথের আবাসিক হোটেলে স্ত্রী জান্নাতুল নাঈম সিদ্দিকীকে নিয়ে যায় স্বামী রেজাউল করিম। সিসিফুজেটে তাদের দুজনকে বুধবার হোটেলের সিঁড়ি দিয়ে ঢুকতে দেখা যায়। কক্ষে প্রবেশের পর পূর্ব পরিকল্পনা অনুযায়ী জান্নাতুলকে ছুরি দিয়ে গলাকেটে হত্যা করে পালিয়ে যায় রেজাউল।

এ ঘটনায় কলাবাগান থানায় রেজাউলকে আসামি করে বৃহস্পতিবার হত্যা মামলা করেন নিহতের বাবা শফিকুল আলম। আসামিকে গ্রেপ্তারে মাঠে নামে আইন শৃঙ্খলা বাহিনী। বৃহস্পতিবার রাতে চট্টগ্রামের মুরাদপুর থেকে রেজাউল করিমকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব।

র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক খন্দকার আল মঈন জানিয়েছে, একাধিক নারীর সঙ্গে সম্পর্কে বাধা দেয়ায়ই জান্নাতুলকে খুন করেন স্বামী রেজাউল।

২০১২ সালে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে জান্নাতুল ও রেজাউলের প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। ২০২০ সালে পরিবারকে না জানিয়ে বিয়ে করেন তারা। এরপর নিজেদের মধ্যে নানা বিষয় নিয়ে ঝগড়া চলছিলো বলেও জানান তিনি।

হত্যাকাণ্ডের পর পরিচিত একজনের সহযোগিতায় চট্টগ্রামের মুরাদপুরের একটি মেসে ওঠেন রেজাউল করিম। সেখানে থেকেই খুনের মামলা থেকে বাঁচতে কয়েকজন আইনজীবীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

গত ১০ই আগস্ট রাতে রাজধানীর পান্থপথের একটি আবাসিক হোটেল থেকে চিকিৎসক জান্নাতুল নাইম সিদ্দিকীর গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। জান্নাতুল এমবিবিএস পাস করে ঢাকা মেডিকেল কলেজে গাইনি বিষয়ের একটি কোর্সে পড়াশুনা করছিলেন।

 

MNU/prabir