দেশবাসী ভালো থাকলেই ষড়যন্ত্র শুরু হয় : প্রধানমন্ত্রী

প্রকাশিত: ১৪-০৮-২০২২ ১৭:০০

আপডেট: ১৫-০৮-২০২২ ১০:৪১

নিজস্ব প্রতিবেদক: প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যখনই এদেশের মানুষ ভালো থাকে, ভালো অবস্থানে আসে, তখনই ষড়যন্ত্র শুরু হয়। একটা শ্রেণী রয়েছে এদেশে, যারা এদেশের মানুষের কল্যাণ চায় না। স্বাধীনতা অর্থবহ হোক, স্বাধীনতার সুফল মানুষ পাক, তা চায় না। এক্ষেত্রে বাধা দেয়ার চেষ্টা করা হয়। 

আজ রবিবার (১৪ই আগস্ট) আওয়ামী লীগের বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদকদের সঙ্গে বৈঠকে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন। দলের সভাপতি শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে গণভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

১৫ই আগস্টের হত্যাকাণ্ড প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আমার শুধু একটাই প্রশ্ন জাগে মনে, আমার বাবা মা ভাই বোন কী অপরাধ করেছিল, কেন তাদেরকে হত্যা করা হলো।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, উপনিবেশিক শাসনামলের প্রশাসনিক কাঠামো ভেঙে গণমুখী প্রশাসনিক কাঠামো করতে চেয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু। ক্ষমতাকে বিকেন্দ্রীকরণ করে তিনি তৃণমূলের মানুষের কাছে ক্ষমতা নিতে চেয়েছিলেন। 

তিনি বলেন, মনে হয় এদেশের মানুষের ভাগ্য পরিবর্তনে কেউ যদি অবদান রাখতে যায়, তাকে বিপর্যয়ে পড়তে হয়। এটাই বাস্তবতা। এটাই হচ্ছে আমাদের জন্য সবচেয়ে দুর্ভাগ্যের। 

আট বিভাগের সাংগঠনিক সম্পাদকের সাথে সভায় শেখ হাসিনা বলেন, এদেশের মানুষ যখন বিপদে থাকে তখন আওয়ামী লীগ সবার আগে মানুষের পাশে দাঁড়ায়। সেই সংগঠনকে সুসংহত করতে হবে। 

তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ সবসময় গণতন্ত্রে, নীতিতে এবং জনগণের ক্ষমতায় বিশ্বাস করে। ১৫ই আগস্টের খুনিদের জিয়াউর রহমান শুধু যে মাফ করে দিয়েছে তা নয়, তাদেরকে পুনর্বাসিত করেছিল। খুনিদের সাথে তাদের সৌহার্দ্য কত, সেটা জনগণের জানা উচিত। খুনিদের বিচারের পথ বন্ধ করে দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতি চালু করে দিয়েছিল বিএনপি। 

 

 

 

MHS/shimul