রাজশাহীতে খুন করে চট্টগ্রামে আত্মগোপন, গ্রেপ্তার ৩

প্রকাশিত: ১৪-০৮-২০২২ ১৭:৫১

আপডেট: ১৪-০৮-২০২২ ১৭:৫১

চট্টগ্রাম প্রতিবেদক: রাজশাহীতে প্রতিবেশীকে খুন করে চট্টগ্রামে আত্মগোপন করা এক দম্পতি ও তাদের ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে র‌্যাব। শনিবার রাতে চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড উপজেলার মাদাম বিবিরহাট ও উত্তর সলিমপুর এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়। 

আজ রোববার (১৪ই  আগস্ট) দুপুরে সংবাদ সম্মেলনে তাদের গ্রেপ্তারের বিষয়টি জানায় র‌্যাব। গ্রেপ্তার তিনজন হলেন-রাজশাহী নগরের শাহ মখদুম থানার হরিষার ডাইং এলাকার মো. বকুল আলী (৪৫), তার স্ত্রী আমেনা (৪০) ও তাদের ছেলে মো. নাহিদ হোসেন (২০)।

 র‌্যাব ৭ এর অধিনায়ক ল্যাফটেনেন্ট কর্নেল এম ইউসুফ জানায়, র্দীর্ঘদিন ধরে বিভিন্ন বিষয় নিয়ে মুকুল ও বকুল আলীর পরিবারের মধ্যে বিরোধ ছিল। গত পহেলা আগস্ট রাতে উচ্চশব্দে গান বাজাচ্ছিন নাহিদ। এতে মুকুল আলীর অন্তঃসত্ত্বা মেয়ের অসুবিধা হয়। বাধ্য হয়ে নাহিদের বাড়িতে গিয়ে উচ্চস্বরে গান বাজাতে নিষেধ করেন মুকুল আলী।

এ নিয়ে নাহিদের পরিবারের সাথে ঝগড়া হয় মুকুলের। একপর্যায়ে মুকুলের মাথায় ও শরীরের বিভিন্ন জায়গায় লোহার রড দিয়ে আঘাত করে। পরে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  মারা যান মুকুল।  এ ঘটনায় নিহতের ছেলে বাদী হয়ে রাজশাহীর শাহমখদুম থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন।

এদিকে, চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ার জিল্লুর ভান্ডারী হত্যা মামলায় যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামি তোতা মিয়াকে দীর্ঘ সাত বছর পর গ্রেপ্তার করেছে  র‌্যাব। শনিবার ঢাকার তুরাগ থানার কামারপাড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

এম ইউসুফ জানান, ২০১৫ সালের ২১শে জানুয়ারি রাঙ্গুনিয়া উপজেলার রানীরহাট প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে জিল্লুর ভান্ডারীকে গুলি করে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় নিহতের ছোট ভাই বাদী হয়ে রাঙ্গুনিয়া থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করে। 

এ মামলায় গত ১৫ই ফেব্রুয়ারি আদালত অভিযুক্ত দুই আসামিকে মৃত্যুদণ্ড এবং ছয় আসামিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন। যাবজ্জীবন কারাদণ্ড প্রাপ্তদের একজন তোতা মিয়া।

 

kanij/shimul