‘বিআরটি প্রকল্পের কাজ বন্ধ থাকবে’

প্রকাশিত: ১৬-০৮-২০২২ ১৮:০৬

আপডেট: ১৬-০৮-২০২২ ১৮:০৬

নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজধানীর উত্তরায় বাস র‌্যাপিড ট্রানজিট প্রকল্পের নির্মাণাধীন উড়ালপথের একটি গার্ডার চাপায় প্রাইভেটকারের পাঁচজন নিহতের ঘটনায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। দায়িত্বে অবহেলাজনিত কারণে মৃত্যুর অভিযোগে এই মামলা করা হয়েছে। এদিকে, মঙ্গলবার দুর্ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন ঢাকা উত্তর সিটির মেয়র আতিকুল ইসলাম। নিরাপত্তা নিশ্চিত না হওয়া পর্যন্ত ঢাকা উত্তর সিটিতে বিআরটি প্রকল্পের কাজ বন্ধ রাখার ঘোষণা দেন তিনি। অন্যদিকে, দুর্ঘটনা তদন্তে ছয় সদস্যের কমিটি গঠন করেছে বিআরটি কর্তৃপক্ষ। 

কোনো ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত না করেই উত্তরায় চলছিল বিআরটি প্রকল্পের নির্মাণাধীন উড়ালপথের গার্ডার বসানোর কাজ। গতকাল সোমবার সেখানেই ঘটে মর্মান্তিক দুর্ঘটনা। প্রকল্পের ক্রেন থেকে একটি গার্ডার চলন্ত প্রাইভেট কারের উপর পড়লে গাড়ির ৫ আরোহী নিহত হয়। 

প্রত্যক্ষদর্শীরা বলছেন কর্তৃপক্ষের অব্যবস্থাপনার কারণেই এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে।

পাঁচজন নিহতের এই ঘটনায় ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না গ্যাঝুবা গ্র“প করপোরেশনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। উত্তরা পশ্চিম থানায় এ মামলা করেন দুর্ঘটনায় নিহত এক নারীর ভাই। 

বিআরটি কর্তৃপক্ষ স্বীকার করছেন, এ দুর্ঘটনার দায় তারা এড়াতে পারেন না। নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিতে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের গাফিলতি আছে বলেও জানায় বিআরটি কর্তৃপক্ষ। 

এদিকে, মঙ্গলবার সকালে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন উত্তরের মেয়র। তিনি বলেন, বিআরটি তাদের কাজের সময় যথাযথ নিরাপত্তা ব্যবস্থা না রাখায় এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে। নিরাপত্তা নিশ্চিত না করা পর্যন্ত কাজ বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন মেয়র।

এদিকে, এই দুর্ঘটনার সময় প্রাইভেটকারটিতে থাকা নববধূ রিয়া মনি বেঁচে গেলেও মারা গেছেন তার মা ফাহিমা বেগম। রিয়া এবং তার মা থাকতেন আশুলিয়ায়। ফাহিমা বেগমের মৃত্যুর খবরে শোকের ছায়া নেমে এসেছে আশুলিয়ায় তাদের বাসায়।

 

Akash/shimul