দেশে সম্প্রীতি নষ্ট করতে চায় একটি মহল

প্রকাশিত: ১৮-০৮-২০২২ ১৮:৫৮

আপডেট: ১৯-০৮-২০২২ ১১:৪০

নিজস্ব প্রতিবেদক: সব ধর্মেরই কিছু মানুষ বিভিন্ন সময় বিভিন্ন সমস্যা তৈরির চেষ্টা করলেও সরকারের পক্ষ থেকে সবসময় তড়িৎ ব্যবস্থা নেয়া হয় বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  তিনি বলেন, কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে কথা বলা উচিত নয়। 

আজ বৃহস্পতিবার (১৮ই আগস্ট) সন্ধ্যায় জন্মাষ্টমী উদযাপন পরিষদ এবং বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের নেতাদের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময়ে তিনি এ কথা বলেন। ঢাকেশ্বরী মন্দিরে এই শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী গণভবন থেকে ভার্চুয়ালি যোগ দেন। 

বাংলাদেশের মাটিতে সব ধর্মের মানুষের সহাবস্থানের বিষয়টি তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, এই মাটিতে যাদের জন্ম তারা নিজেদের মতো করে নিজেদের ধর্ম পালন করবে। কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দিয়ে কোন কথা বলা ঠিক না। যার যার ধর্ম সে পালন করবে আমরা সেই নীতিতে বিশ্বাস করি। কারো ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত যাতে কেউ না দেয়, আমরা সেটাই চাই।

তিনি বলেন, মানবতার জন্য কাজ করাই আমাদের লক্ষ্য। সেটা বিশ্বাস করি এবং সে বিশ্বাস নিয়ে আমরা চলি। আমরা চাই সব ধর্মের মানুষ নিজেদের অধিকার নিয়ে সমানভাবে বাস করবে। হিন্দুরা নিজেদের সংখ্যালঘু মনে না করে এই দেশেরই মানুষ তারা এ দেশে তাদের সমান অধিকার সেভাবেই নিজেদের মনে করবেন।

আমরা মানব ধর্মের বিশ্বাস করি। আমাদের মহানবী তাই করতেন। শ্রীকৃষ্ণ সে কথাই বলে গেছেন। পবিত্র কোরআনেও রয়েছে যার যার ধর্ম সে পালন করবে। কোন ধর্মের ধর্মগুরু কখনো সংঘাত চাননি। শান্তি চেয়েছেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, ধর্ম পালনে কখনো নিজেকে ছোট মনে করবেন না। আপনারা এদেশের নাগরিক। এদেশের সন্তান। সবার মত সমান অধিকার আপনাদের রয়েছে। 

সঙ্কট থেকে উত্তরণে সবাইকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি বলেন, “সবাই মিলে কাজ করি দেশটাকে এগিয়ে নিয়ে যাবার জন্য। কোনো জমি যেন অনবাদী না থাকে। মাটি আছে, মানুষ আছে উদ্যোগ নিলে নিজেদের চাহিদা পূরণ করতে পারব।”

 

MHS/shimul