মোংলা বন্দরে ড্রেজিং চালু রাখার দাবিতে মানববন্ধন

প্রকাশিত: ০৫-০৯-২০২২ ২০:৫৬

আপডেট: ০৫-০৯-২০২২ ২০:৫৬

বাগেরহাট সংবাদদাতা: মোংলা বন্দরের ইনারবারে চলমান ড্রেজিং প্রকল্পে ষড়যন্ত্রকারীদের অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে গ্রেফতার ও ড্রেজিং চালু রাখার দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল এবং মানববন্ধন করেছেন বন্দরের শ্রমিক-কর্মচারীরা। সোমবার (৯ই সেপ্টেম্বর) দুপুরে মোংলা বন্দর শ্রমিক-কর্মচারী সংঘ চত্বর থেকে বের হওয়া বিক্ষোভ মিছিল করে মোংলা পোর্ট পৌরসভার সামনে এসে শেষ হয়। পরে সেখানে অনুষ্ঠিত হয় মানববন্ধন কর্মসূচী।

মোংলা বন্দর শ্রমিক-কর্মচারী সংঘের আয়োজনে অনুষ্ঠিত এই মানববন্ধনে বক্তব্য রাখের শ্রমিক সংঘের সাধারণ সম্পাদক মো. ওমর ফারুক সেন্টু, মোংলা পোর্ট ঘাট শ্রমিক ইউনিয়ন নেতা মোস্তফা কামাল, মোংলা বন্দর যন্ত্রচালিত মাঝিমাল্লা ইউনিয়নের নেতা রেজাউল করিম নান্নু, লাইটারেজ শ্রমিক ইউনিয়নে নেতা মো. মাইনুল ইসলাম মিন্টুসহ অন্যান্য সংগঠনের নেতৃবৃন্দ। এ বিক্ষোভ মিছিল ও মানববন্ধনে কয়েক হাজার শ্রমিক-কর্মচারী অংশগ্রহণ করে।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, মোংলা বন্দর এখন ব্যবহার করছে ভারত, ভুটান ও নেপাল। এই অবস্থায় মোংলা বন্দর যখন উন্নয়নের দিকে যাচ্ছে ঠিক তখন একটি চক্র বন্দরের ড্রেজিং নিয়ে ষড়যন্ত্র শুরু করেছেন। তারা পরিবেশের কথা বলে মোংলা বন্দরের ইনারবার ড্রেজিং প্রকল্পের চলমান কাজ বাঁধাগ্রস্ত করার ষড়যন্ত্র করছেন। এ চক্রটি এর আগেও রামপাল তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র নিয়ে ষড়যন্ত্র করে ব্যর্থ হয়েছে। এখন আন্তর্জাতিক ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে মোংলা বন্দরকে অচল করে দেয়ার অপতৎপরতা চালাচ্ছে এই চক্রটি। চলমান এ ড্রেজিং কার্যক্রম ব্যাহত হলে মোংলা বন্দর, রামপাল তাপ বিদ্যুৎকেন্দ্র, রেললাইন, ইপিজেড ও অর্থনৈতিক অঞ্চল অচল হয়ে পড়বে বলে আশংকা প্রকাশ করে বক্তারা ষড়যন্ত্রকারীদের অবিলম্বে আইনের আওতায় এনে গ্রেফতারের দাবী জানান।

প্রসঙ্গত, মোংলা বন্দরের ইনারবারে চলমান ড্রেজিং এ পশুর নদীর পাড়ে বানীশান্তার ৩০০ একর জমির মালিকদের ১০ বছরের ক্ষতিপূরণ বাবদ ৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা ইতিমধ্যে প্রদান করেছে মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষ। এরপরও কতিপয় এনজিও পরিবেশের দোহাই দিয়ে মোংলা বন্দরের ইনারবারে চলমান ড্রেজিং প্রকল্প বন্ধে আন্দোলন করছে। 

 

afroza/habib