প্রবাসীকে হত্যার দায়ে একজনের মৃত্যুদণ্ড

প্রকাশিত: ১৩-০৯-২০২২ ২১:৩৮

আপডেট: ১৩-০৯-২০২২ ২১:৩৮

গোপালগঞ্জ সংবাদদাতা : গোপালগঞ্জে পরকীয়ার জেরে কুয়েত প্রবাসী আজিজুর রহমানকে হত্যার মামলার হাবিবুর রহমান নামে একজনকে মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে আদালত। সেই সাথে পঞ্চাশ হাজার টাকা অর্থদণ্ডও করা হয়েছে। মামলা থেকে আজিজুর রহমানের স্ত্রী রাবেয়া বেগম ওরফে তাপসী ও আলী মিয়াকে খালাস দেওয়া হয়। 

আজ (মঙ্গলবার, ১৩ই সেপ্টেম্বর) দুপুরে গোপালগঞ্জ জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মো: আব্বাস উদ্দিন এ রায় প্রদান করেন। আসামী হাবিবুর রহমান পলাতক রয়েছে। 

মামলার বিবরণে জানা যায়, গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর উপজেলার ভাজন্দি গ্রামের আজিজুর রহমান কুয়েতে থাকতেন। এ সময় তার স্ত্রী রাবেয়া বেগমের সাথে প্রেমের সম্পর্ক হয় পার্শ্ববর্তী ভাঙা উপজেলার নওয়াপাড়া এলাকার হাবিবুর রহমানের সাথে। এ ঘটনা জানাজানি হলে কুয়েত প্রবাসী আজিজুর রহমান দেশে ফিরে আসেন। 

পরে ২০০৭ সালের ১৮ই মার্চ কৌশলে আজিজুর রহমানকে খাওয়ার নিমন্ত্রণ দিয়ে ডেকে নিয়ে যায় হাবিবুর রহমান। পূর্বপরিকল্পিতভাবে খাবারের মধ্যে চেতনানাশক ঔষধ দিয়ে আজিজুর রহমানকে অচেতন করে। পরে তাকে মুকসুদপুর উপজেলার দিকনগর সেতুর পাশে গম ক্ষেতের মধ্যে নিয়ে গলা দড়ি দিয়ে পেচিয়ে শ্বাস রোধ করে হত্যা করে। পরেরদিন সকালে আজিজুর রহমানের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। 

 

পরদিন ১৯ই মার্চ আজিজুর রহমানের পিতা সরাব আলী শেখ গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। মামলায় হাবিবুর রহমান, রাবেয়া বেগম ও আলী মিয়াকে আসামি করা হয়। 

 

 

MBK/shimul