প্রতারণার ফাঁদে এমপি ও পুলিশ কর্মকর্তারও

প্রকাশিত: ২৩-০৯-২০২২ ২০:০৪

আপডেট: ২৩-০৯-২০২২ ২৩:৪৭

নিজস্ব প্রতিবেদক: কম দামে গাড়ি ক্রয়ের প্রলোভন দেখিয়ে আর একই গাড়ি অনেকের কাছে বিক্রি করে কয়েক কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়েছে একজন ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান। তার প্রতারণার শিকার হয়েছে সংসদ সদস্য থেকে শুরু করে পুলিশের উর্ধতন কর্মকর্তাসহ অনেকেই। প্রায় ৩০০ জনের কাছ থেকে হাতিয়ে নিয়েছে কোটি কোটি টাকা। জাকির হোসেন নামে ঐ ইউপি চেয়ারম্যানকে গ্রেপ্তার করেছে গোয়েন্দা পুলিশ।

কুমিল­ার মেঘনা উপজেলার মানিকারচর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান তিনি। এই জনপ্রতিনিধির মানুষের সেবা করার কথা থাকলেও কয়েক বছর ধরে করে আসছেন প্রতারণা। ২৩ লাখ টাকা দামের গাড়ি ১৭ লাখ টাকায় কিনে দেয়ার কথা বলে মানুষের কাছ থেকে টাকা নিতেন।

পরে সেই টাকায় গাড়ি কিনে তা ভাড়ায় খাটানোর কথা বলে নিতেন এবং কয়েক মাস ঠিকমতো অর্থ পরিশোধ করার পর তা বন্ধ করে দিতেন। গাড়ি রেখে দিতেন নিজের কাছেই। তাঁর প্রতারণার ফাঁদে পড়েছেন অনেকেই।

এমন প্রতারণার দায়ে মামলা হলে তদন্ত নামে গোয়েন্দা পুলিশ। সত্যতা পেয়ে গত ২১ সেপ্টেম্বর ইউপি চেয়ারম্যান জাকিরকে গ্রেপ্তার করা হয়। ডিএমপি গোয়েন্দা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার হারুন অর রশীদ জানিয়েছেন, প্রতারণার টাকায় নিজ জেলার রাজনৈতিক পদ-পদবী বাগিয়ে নেন জাকির।

প্রতারণার টাকায় রাজধানীতে কয়েকটি বাড়ি করেছেন জাকির। ছেলেকে আমেরিকা পাঠিয়েছেন। কয়েকমাসের মধ্যে তার দেশ ছেড়ে চলে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল বলেও জানায় গোয়েন্দা পুলিশ।

 

Rakib/nasir