ফুটবলার হওয়ার স্বপ্নে বিভোর একদল কিশোরী

প্রকাশিত: ৩০-০৯-২০২২ ০৮:৫০

আপডেট: ৩০-০৯-২০২২ ০৯:৪৬

চাঁপাইনবাবগঞ্জ সংবাদদাতা: ফুটবল নিয়ে বহুদূর যাওয়ার স্বপ্ন দেখছেন একদল ক্ষুদে মেয়ে ফুটবলার। পারিবারিক দারিদ্রতা আর সামাজিক কুসংস্কারের শেকল ছিঁড়ে চাঁপাইনবাবগঞ্জের সীমান্তবর্তী শিবগঞ্জের পুকুরিয়া গ্রামের একদল ক্ষুদে মেয়ে ফুটবলার এগিয়ে যেতে চায় বহুদূর। সেই লক্ষ্যে প্রতিনিয়ত চলে কঠোর অনুশীলন। পাশে দাঁড়িয়েছে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুস সাত্তার ক্রীড়া একাডেমি। পৃষ্ঠপোষকরা বলছেন, সামাজিক আর অর্থনৈতিক প্রতিবন্ধকতা থাকলেও মেয়েদের সামনে এগিয়ে যাবার স্বপ্ন দেখাতে চান তারা। আর এই পথচালায়  সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দিয়েছে জেলা ক্রীড়া পরিদপ্তর। 

দেশের পতাকা বিশ্ব দরবারে তুলে ধরার ইচ্ছা আর সনাতনী মানসিকতায় পরিবর্তন আনার লক্ষ্য নিয়ে নিয়মিত চলে কঠোর অনুশীলন। স্বপ্ন দেখেন নারী ফুটবলে আগামীর শক্তি হয়ে উঠার। বলছি চাঁপাইনবাবগঞ্জের সীমান্তবর্তী শিবগঞ্জের মেয়েদের কথা।

সেখানে কয়েকবছর আগেও মেয়েদের ফুটবল খেলার কথা ভাবেনি কেউ, সেখানেই লেগেছে পরিবর্তনের ঢেউ। প্রচলিত ভাবনায় পরিবর্তন আনতে বদ্ধ পরিকর ক্ষুদে ফুটবল কন্যারা। ফুটবলার হওয়ার স্বপ্নে বিভোর এই মেয়েদের পাশে দাঁড়িয়েছে শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার ক্রীড়া একাডেমী। 

মেয়েদের এই চেষ্টা আর সাফল্যে খুশি অভিভাবকরাও। আর্থিক সীমাবদ্ধতা থাকলেও মেয়ের  দেখতে চান অনন্য উচ্চতায়। বিভিন্ন আসরে অংশ নিয়ে নিজেদের প্রতিভার প্রমাণ দিয়েছে এই ক্ষুদে ফুটবলাররা। সরকারি সহযোগিতা পেলে ভবিষ্যতে এই মেয়েরা দেশের মুখ উজ্জল করবে বলে আশাবাদী তাদের কোচ।

ছেলেদের পাশাপাশি মেয়েদেরও খেলাধুলার প্রতি আগ্রহী করতে অভিভাবকদের উদ্বুদ্ধ করতে সব ধরনের সহায়তার আশ্বাস দিয়েছেন জেলা ক্রীড়া কর্মকর্তা। 

২০২১ সালে প্রতিষ্ঠিত শহীদ বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সাত্তার ক্রীড়া একাডেমী থেকে এই পর্যন্ত পাইওনিয়ার লিগে ৭ জন ছেলে খেলোয়াড় অংশগ্রহণ করে। এরই মধ্যে নারী ফুটবল লিগে খেলার জন্য ক্লাবগুলো থেকে ডাক পেয়েছে ২ জন মেয়ে। আসন্ন পাইওনিয়ার লিগে একাডেমির পুরো নারী দলই অংশগ্রহণ করার প্রস্তুতি নিচ্ছে।  

AAA/sharif