মূল্যস্ফীতি আরও কমবে: পরিকল্পনামন্ত্রী

প্রকাশিত: ০৩-১০-২০২২ ১৫:০০

আপডেট: ০৩-১০-২০২২ ১৬:৫৩

নিজস্ব প্রতিবেদক: অর্থনীতিতে একসঙ্গে দুটো খারাপ খবর এসেছে। বৈদেশিক আয়ের প্রধান দুই উৎস- প্রবাসী আয় ও রপ্তানি আয় দুটোই সেপ্টেম্বর মাসে কমেছে। তাতে বাংলাদেশ ব্যাংকে মার্কিন ডলারের রিজার্ভ ৩৬ হাজার কোটির নিচে নেমেছে। তবে এর মধ্যেও সরকারের নানামুখী উদ্যোগে মূল্যস্ফীতি কম হওয়ায় অর্থনীতিতে স্বস্তি আছে বলে জানিয়েছেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। 

করোনা অতিমারিতেও রপ্তানি আয় ও প্রবাসী আয় ভালো ছিল। তাই দেশের অর্থনীতিতে তেমন ধাক্কা লাগেনি। তবে রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের প্রভাব ও দেশে গ্যাস সংকটে রপ্তানি খাত খারাপ সময় পার করছে। কয়েক মাস ধরেই রপ্তানি আদেশ কমে যায়। রপ্তানি আয় কমবে এমন ইঙ্গিতও দিয়েছেন ব্যবসায়ীরা। 

ইপিবির তথ্যমতে, সেপ্টেম্বর মাসে রপ্তানি আয় হয়েছে ৩৯০ কোটি ৫০ লাখ মার্কিন ডলার। যা লক্ষ্যমাত্রার চেয়ে ৭ শতাংশ কম। সেপ্টেম্বরে পণ্য রপ্তানি থেকে ৪ দশমিক ২০ বিলিয়ন ডলার আয়ের লক্ষ্যমাত্রা ছিল সরকারের।

এদিকে কমেছে প্রবাসী আয়ও। সেপ্টেম্বর মাসে বৈদেশিক আয় এসেছে ১৫৩ কোটি ৯৫ লাখ ডলার। গত ৭ মাসের মধ্যে প্রবাসীদের পাঠানো এটি সর্বনিম্ন আয়। চলতি অর্থবছরের প্রথম দুই মাসে টানা ২ বিলিয়ন ডলার করে প্রবাসি আয় দেশে আসে। 

এদিকে, রাজধানীর আগারগাঁওয়ে বিআইডিএসের আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে পরিকল্পনামন্ত্রী জানান, সেপ্টেম্বরে মূল্যস্ফীতি কিছুটা কমেছে। এই মাসে আরো কমবে বলেও ইঙ্গিত দেন তিনি।

সরকারের নেয়া উদ্যোগে দেশের অর্থনীতির গতি ফিরে আসবে বলেও আশা প্রকাশ করেন পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। 

 

Nijhum/sat