বিশ্বকাপ মহারণে প্রস্তুত পাকিস্তান

প্রকাশিত: ১০-১১-২০২২ ১৪:৩৫

আপডেট: ১০-১১-২০২২ ২২:৪৪

অস্ট্রেলিয়া থেকে এস.এম.সুমন: ফাইনালে প্রতিপক্ষ হিসেবে যে দলই আসুক মহারণের জন্য পাকিস্তান প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন দলটির অধিনায়ক বাবর আজম। সিডনিতে সেমিফাইনাল শেষে পাকিস্তান ক্রিকেট দল এখন প্রস্তুত স্বপ্নের ফাইনালের জন্য। এবারের আসরে সেমিফাইনাল খেলাই যাদের অনিশ্চিত হয়ে পড়েছিলো, দুর্দান্তভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে সেই পাকিস্তানই এখন শিরোপার লড়াইয়ের অপক্ষোয়। মেলবোর্নে আগামী ১৩ই নভেম্বর ফাইনাল ম্যাচ জিততে মানসিকভাবেও প্রস্তুত পাকিস্তান।

রুপকথার গল্পকেও হার মানিয়েছে এবারে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ক্রিকেটে পাকিস্তান দলের পারফরম্যান্স এবং ঘুরে দাঁড়ানো। এবারে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে পাকিস্তান দলের শুরুটা ছিলো দুঃস্বপ্নের মতো। মেলবোর্নে প্রথম ম্যাচে ভারতের কাছে পরাজয়ে শুরু। এরপর পার্থে দ্বিতীয় ম্যাচে জিম্বাবুয়ের কাছে পরাজয়ে পাকিস্তানের সেমিফাইনালে উঠার আশা ছেড়ে দিয়েছিলেন দলটির সাবেকদের অনেকেই। কিন্তু, অদম্য মনোবল এবং ভাগ্য সহায় থাকলে, কোন কিছুই দমিয়ে রাখা যায় না। ২২ গজের লড়াইয়ে ক্রিকেটারদের পারফরম্যান্সের পাশাপাশি ভাগ্যও সহায় থাকতে হয়। আর বিশ্ব ক্রিকেটে পাকিস্তান দল বরাবরই এই ভাগ্যের সহায়তা পেয়েছে। 

সুপার টুয়েলভ পর্বে বাংলাদেশের বিপক্ষে শেষ ম্যাচের আগে দক্ষিণ আফ্রিকাকে হারিয়ে নেদারল্যান্ডস পাকিস্তানকে সেমিফাইনালে উঠার পথটা তৈরি করে দেয়। সুপার টুয়েলভ পর্বের বাধা পেরিয়ে সেমিফাইনালে এক অন্যরকম পাকিস্তানকে দেখলো ক্রিকেট বিশ্ব। উড়তে থাকা নিউজিল্যান্ডকে কোন রকম লড়াই করার সুযোগ দেয়নি পাকিস্তান।  বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে পাকিস্তান সব সময় দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে। সেটা হোক ওয়ানডে কিংবা টি- টোয়েন্টি যে কোন ফরম্যাটে। আর সেমিফাইনালে সব সময় পাকিস্তানের প্রিয় প্রতিপক্ষ নিউজিল্যান্ড। ৯২ ও ৯৯’র ওয়ানডে বিশ^কাপ এবং ২০০৭ ও ২০২২’র টি- টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ক্রিকেট চারটি সেমিফাইনালের একটিতেও নিউজিল্যান্ড পেরুতে পারেনি পাকিস্তান বাধা।

খাদের কিনারে থাকা পাকিস্তান দলের প্রত্যাবর্তনে দারুণ উচ্ছ্সিত অধিনায়ক বাবর আজম।  ফাইনালে নিজেদের সেরাটা দিয়ে শিরোপা জয়ের স্বপ্ন দেখতে তারা প্রস্তুত বলে জানিয়েছেন দলটির অধিনায়ক বাবর আজম।

টানা দুই পরাজয়ের পর আমরা অনেকটাই হতাশ হয়ে পড়েছিলাম। কিন্তু দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জেতার পর পুনরায় আশার আলো দেখতে পাই। ক্রিকেটাররা কঠোর পরিশ্রম করেছে দলকে ফাইনলে তুলতে। সাফল্যের এই ধারাবাহিকতা ফাইনালেও ধরে রাখতে চাই প্রতিপক্ষ যে ই আসুক। 

১৯৯২ সালে মেলবোর্নে ওয়ানডে বিশ্বকাপ ক্রিকেটে ফাইনালে পাকিস্তান শিরোপা জিতেছিলো ইমরান খানের নেতৃত্বে। ৩০ বছর পর আবারো সেই মেলবোর্নে আরেকটি ফাইনাল ম্যাচ খেলবে পাকিস্তান। ওয়েস্ট ইন্ডিজের পর দ্বিতীয় দল হিসেবে পাকিস্তানের সামনে দু’টি টি- টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ট্রফি জয়ের হাতছানি রয়েছে। 

 

SMS/Bodiar