টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের শিরোপা ইংল্যান্ডের

প্রকাশিত: ১৩-১১-২০২২ ১৫:৪৯

আপডেট: ১৩-১১-২০২২ ১৯:২৩

ক্রীড়া ডেস্ক: পাকিস্তানকে হারিয়ে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ক্রিকেটের শিরোপা ঘরে তুললো ইংল্যান্ড। সেইসাথে তারা এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজের সাথে দু'টি টি-টোয়েন্টি শিরোপার মালিক। ফাইনালে আজ রোববার (১৩ই নভেম্বর) মেলবোর্ন ক্রিকেট গ্রাউন্ডে আগে ব্যাট করতে নেমে ৮ উইকেটে ১৩৭ রান তোলে পাকিস্তান। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ১ ওভার ও ৫ উইকেট হাতে রেখেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় ইংলিশরা। 

ফাইনালে ১৩৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে প্রথম ওভারেই শেষ বলে অ্যালেক্স হেলসকে সরাসরি বোল্ড করেন শাহিন আফ্রিদি। তবে পরের ওভারে নাসিম শাহকে তিনবার বাউন্ডারি ছাড়া করেন বাটলার ও সল্ট। ওই ওভারে আসে ১৪ রান।

তৃতীয় ওভারে শাহিন আফ্রিদির দারুণ বোলিংয়ের সুযোগ নেন হারিস রউফ। চতুর্থ ওভারের তৃতীয় বলে ফেরান ফিলিপ সল্টকে। দলীয় ৩২ রানের মাথায় দ্বিতীয় উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। সল্ট ৯ বলে করেন ১০ রান। 

এরপর দলীয় ষষ্ঠ ওভারে ঝড় তোলা জস বাটলারকে ফিরিয়ে দেন হারিস রউফ। আউট হওয়ার আগে ১৭ বলে ২৬ রান করেন বাটলার। পরপর তিন উইকেট হারিয়ে রানের গতি কমে যায় ইংলিশদের। বেন স্টোকস আর হ্যারি ব্রক মাঠে থাকলেও রান তুলতে পারছিলেন না। ১০ ওভার শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ছিল ৩ উইকেটে ৭৭ রান।

এরপরই চতুর্থ ধাক্কাটি খায় ইংল্যান্ড। ২৩ বলে ২০ রান করে শাদাব খানের শিকার হন ব্রুক। দলের সংগ্রহ তখন ৮৪। তার বিদায়ের পর মাঠে আসেন মঈন আলী। তবে ১৬ ওভারে হঠাৎ বদলে যায় ম্যাচের চেহারা। শাহিন আফ্রিদি প্রথম বলের পর চোট পেয়ে ফেরেন সাজঘরে। ওই ওভারের বাকি ৫ বল করতে আসেন ইফতিখার।

দুই ব্যাটার মিলে নেন ১৩ রান। পরের ওভারে আসে আরো ১৬ রান। তাতেই ম্যাচ ঝুঁকে যায় ইংল্যান্ডের দিকে। ১৯তম ওভারের দ্বিতীয় বলে মঈন আলী ফিরলেও স্টোকস একা হাতেই দলকে এনে দেন দ্বিতীয় শিরোপা। এই ব্যাটার ৪৯ বলে ৫২ রানে অপরাজিত থাকেন। পাকিস্তানের হয়ে হারিস রউফ ৪ ওভারে ২৩ রানে নেন ২ উইকেট।

এর আগে, ফাইনালে টস ভাগ্য যায় ইংল্যান্ডের পক্ষে। ইংলিশ অধিনায়ক জস বাটলার পাকিস্তানকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানান। আগে ব্যাটে নেমে দেখেশুনে শুরু করেন পাকিস্তানি দুই ওপেনার বাবর আজম আর মোহাম্মদ রিজওয়ান।

তবে তবে পঞ্চম ওভারে এসে ধাক্কা খায় পাকিস্তান। দলীয় ২৯ রানের মাথায় স্যাম কুরানের বল জায়গায় দাঁড়িয়ে খেলতে গিয়ে ইনসাইডেজ হয়ে বোল্ড হন রিজওয়ান। ১৪ বলে ১৫ করেন পাকিস্তানি ওপেনার।

রিজওয়ানের বিদায়ের পর ক্রিজে এসে বেশিক্ষণ স্থায়ী হতে পারেননি ফর্মে থাকা মোহাম্মদ হারিস। আদিল রশিদেও বলে বেন স্টোকসের হাতে ক্যাচ দিয়ে ১২ বলে ৮ রান কওে ফেরেন তিনি। তবে অপরপ্রান্ত আগলে রাখেন বাবর আজম। পাকিস্তান অধিনায়ক অধিনায়ক চাওে আসা শান মাসুদকে নিয়ে জুটি গড়ে প্রাথমিক বিপর্যয় সামাল দেন। এই জুটিতে আসে ৪০ রান।

বাবর আজম দলীয় ৮৫ রানের মাথায় সাজঘওে ফিরলে ভাঙে এই জুটি। বাবর ২৮ বলে করেন ৩২ রান। এরপর দলীয় ৮৫ রানের মাথায় কোনো রান না করেই ফেরেন ইফতিখার আহমেদ। পাকিস্তানকে বড় সংগ্রহের আশা দেখিয়েও ১২১ রানের মাথায় ফিওে যান শান মাসুদ। তার আগে দলীয় সর্বোচ্চ ২৮ বলে করেন ৩৮ রান।

আর শেষদিকে ইংল্যান্ডের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের সামনে রীতিমতো ধুকেছে পাক ব্যাটাররা। শাদাব খান ১৪ বলে ২০ রানের ক্যামিও ইনিংস খেললেও বাকিরা কেউ সুবিধা করতে পারেনি। ফলে ১৩৭ রানে থামে পাকিস্তান।

স্যাম কুরান ৪ ওভারে ১২ রান দিয়ে ৩ উইকেট আর ক্রিস জর্ডান ৩ ওভারে ২৭ রানে ২ উইকেট নিয়েছেন।

rocky/sharif