যুক্তরাষ্ট্রে টাইপ-১ ডায়াবেটিসের ওষুধ অনুমোদন

প্রকাশিত: ১৮-১১-২০২২ ১৯:০২

আপডেট: ১৮-১১-২০২২ ১৯:০২

আন্তর্জাতিক ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রে টাইপ-১ ডায়াবেটিস মোকাবিলায় অনুমোদন পেল একটি ওষুধ। টাইপ-১ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে থাকা মানুষরা উপকার পাবেন এ ওষুধে। যুক্তরাষ্ট্রের খাদ্য ও ওষুধ প্রশাসন (এফডিএ) সম্প্রতি এ অনুমোদন দিয়েছে। খবর: বিবিসি ও সিএনএন।

টাইপ-১ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত বিশে^র প্রায় ৮৭ লাখ মানুষ। এফডিএর অনুমোদন পাওয়া টাইপ-১ ডায়াবেটিসের ওষুধটির নাম ’টেপলিজুমাব’। তবে এটিকে বাজারজাত করা হবে ’জিল্ড’ নামে। 

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, চিকিৎসার ক্ষেত্রে টেপলিজুমাব ওষুধটি ‘নতুন যুগ’-এর সূচনা করবে। ওষুধটি ডায়াবেটিসের লক্ষণ মোকাবিলার মধ্যে সীমাবদ্ধ না থেকে প্রথমবারের মতো মূল কারণকে মোকাবিলা করার সক্ষমতা রাখে। ওষুধটি প্রয়োগ করা হলে এটি মানুষের শরীরের রোগ প্রতিরোধব্যবস্থা স্বাভাবিক হয়ে উঠবে। 

ডায়াবেটিসের প্রধান দুটি ধরন আছে। টাইপ-১ ডায়াবেটিস ও টাইপ-২ ডায়াবেটিস। টাইপ-১ ডায়াবেটিস মানুষের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতার ওপর আঘাত করে এবং ইনসুলিন উৎপাদনকারী কোষগুলোকে ধ্বংস করে দেয়। আর টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত ব্যক্তিদের শরীরে যথেষ্ট ইনসুলিনের উৎপাদন হয় না কিংবা শরীরের কোষগুলো ইনসুলিনের প্রতি প্রতিক্রিয়া দেখায় না।

টাইপ-১ ডায়াবেটিসের চেয়ে টাইপ-২ ডায়াবেটিসে আক্রান্ত রোগী বেশি দেখা যায়। ওজন কমানো, শরীরচর্চাসহ জীবনযাপন পদ্ধতিতে পরিবর্তন আনার মধ্য দিয়ে টাইপ-২ ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করা গেলেও টাইপ-১ হলো জেনেটিক রোগ। এখন পর্যন্ত এটি প্রতিরোধ করার মতো কোনো উপায় আবিষ্কৃত হয়নি। টাইপ-১ ডায়াবেটিস শনাক্ত হতে দেরি হলে শরীরের ওপর মারাত্মক প্রভাব পড়তে পারে। এতে  শরীরের কার্যক্ষমতা নষ্ট হয়ে যেতে পারে এমনকি হতে পারে মৃত্যুও।

 

Prottay/Bodiar