আয় বৈষম্য কমাতে প্রত্যক্ষ কর বাড়ানোর তাগিদ

প্রকাশিত: ১৯-১১-২০২২ ২০:০৯

আপডেট: ১৯-১১-২০২২ ২০:০৯

নিজস্ব প্রতিবেদক: ক্রমবর্ধমান বৈষম্য আয় কমাতে প্রত্যক্ষ কর বাড়াতে হবে। এটিই প্রধান উপায়। এ ক্ষেত্রে সব করযোগ্য ব্যক্তিরা আয়কর স্লাব অনুযায়ী কর প্রদান করলে জিডিপির অনুপাতে বর্তমানে ব্যক্তি আয়কর ১ শতাংশ থেকে বাড়িয়ে ৩.১ শতাংশ অর্জন করা সম্ভব। এ জন্য নিবন্ধিত করদাতার সংখ্যা বাড়াতে হবে। একইসাথে কর অব্যহতি সুবিধা বাদ দিলে জিডিপির অনুপাতে আরও ২ শতাংশ কর বাড়ানো সম্ভব।     

শনিবার (১৯শে নভেম্বর) রাজধানীর পুরানা পল্টনে ‘বৈষম্য মোকাবেলা ও রাজস্ব আয় বৃদ্ধিতে প্রত্যক্ষকর প্রয়োগ’ শীর্ষক সেমিনারে এমন তথ্য তুলে ধরে গবেষণা সংস্থা রিসার্চ অ্যান্ড পলিসি ইন্টিগ্রেশন ফর ডেভেলপমেন্ট (র‌্যাপিড)। র‌্যাপিড এবং ইকোনমিক রিপোটার্স ফোরাম (ইআরএফ) যৌথভাবে সেমিনারের আয়োজন করে। 

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন র‌্যাপিড চেয়ারম্যান ড. মোহাম্মদ আবদুর রাজ্জাক। তিনি বলেন, বাংলাদেশের কর জিডিপি অনুপাত ৯ শতাংশ, যা সারা বিশে^ সর্বনি¤œ। এর বড় কারণ প্রত্যক্ষকর অনেক কম। এটা বাড়াতে হবে। বর্তমানে পরোক্ষ কর ৬৫ শতাংশ এবং প্রত্যক্ষ কর ৩৫ শতাংশ। তবে সরকার আগামী দিনে প্রত্যক্ষ কর ৭০ শতাংশ ও পরোক্ষ কর ৩০ শতাংশে আনার যে উদ্যোগ নিয়েছে- সেটি সঠিক সিদ্ধান্ত। 

তিনি বলেন, বাংলাদেশে প্রধানতম দুটি সমস্যা ক্রমবর্ধমান বৈষম্য এবং সরকারি ব্যয় জিডিপির অংশ হিসাবে অনেক কম। এর বড় কারণ প্রত্যক্ষ কর কম। যদিও টাকার অংকে প্রত্যক্ষ কর আগের চেয়ে বেড়েছে। তবে জিডিপির অনুপাতে ও পরিমাণের দিক থেকে বিশে^র অনেক দেশের তুলনায় অনেক কম। 

এনবিআরের সাবেক চেয়ারম্যান ড. নাসির উদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রত্যক্ষ কর বাড়ানো উচিত। তবে ৭০ শতাংশ প্রত্যক্ষ কর বৃদ্ধি উচ্চাভিলাষী লক্ষ্য। এই লক্ষ্য বাস্তবায়নের নির্দিষ্ট সময়সীমা নির্ধারণ করা প্রয়োজন। কারণ এনবিআরের কাঠামোগত সমস্যা রয়েছে। রাজনৈতিক অর্থনীতির কারণে এনবিআর রাজস্ব আয়ে পিছিয়ে আছে। রাজস্ব আয় বাড়াতে এখন বড় বাধা রাজনৈতিক অর্থনীতি। কারণ অনেক খাতেই কর অবকাশ সুবিধা দিতে হচ্ছে। বিশেষ কর হার আরোপ করতে হচ্ছে। 

র‌্যাপিডের নির্বাহী পরিচালক ড. এম আবু ইউসুফের সঞ্চালনায় সেমিনারে অংশ নেন, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব কবিরুল ইয়াজদানী, এনবিআরের সদস্য মাহমুদুর রহমান, ইআরএফ সভাপতি শারমিন রিনভী ও সাধারণ সম্পাদক এস এম রাশিদুল ইসলাম। 

 

Mukta/Bodiar