'ফ্লোর প্রাইস' পুঁজিবাজারে লেনদেনে বড় বাধা

প্রকাশিত: ২৫-১১-২০২২ ১৪:৩১

আপডেট: ২৫-১১-২০২২ ১৪:৪৬

তানজিলা নিঝুম: পুঁজিবাজারকে স্বাভাবিক করতে শেয়ারের দামের সর্বনিন্ম সীমা বেঁধে দেয়ার নিয়মটিই এখন লেনদেনে বড় বাধা বলে মনে করেন বাজার বিশ্লেষকরা। পাশাপাশি ব্লক মার্কেটে শেয়ার বেচাকেনার নিয়মনীতিও ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীর পক্ষে নয় বলে মনে করেন তারা। এদিকে, দেশের অর্থনীতির সার্বিক পরিস্থিতি ভালো না থাকায় বড় বিনিয়োগকারীদের বিনিয়োগে আগ্রহ নেই। তাই বাজারকে স্বাভাবিক করতে শেয়ারের সর্বনিন্ম সীমা রাখার বিষয়টি পুনরায় বিবেচনা করার পরামর্শ দিয়েছেন বাজার বিশ্লেষকরা। 

পুঁজিবাজারকে স্বাভাবিক করতে সিএসই বেঁধে দেয় শেয়ারের দামের সর্বনিন্ম সীমা। কিন্তু এতে বাজার স্বাভাবিক না হয়ে হাঁটছে উল্টো পথে। বেশিরভাগ কোম্পানির শেয়ারের দাম আটকে আছে সবনিন্ম সীমায়। লেনদেন কমতে কমতে নেমেছে তিন হাজার কোটিতে। গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে ডিএসই’র প্রধান সূচক আগের দিনের তুলনায় ৮ পয়েন্ট বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৬ হাজার ২১৫ পয়েন্টে। সূচক বাড়লেও কমেছে লেনদেন। দিনশেষে ২১৬ কোটি ৮৮ লাখ টাকা কমে লেনদেন হয়েছে ৩২৩ কোটি ৮০ লাখ টাকা। 

পুঁজিবাজারের এই লেনদেন স্বাভাবিক চিত্র নয় বলে মনে করেন অর্থনীতিবিদ আবু আহমেদ। শেয়ারের সর্বনিন্ম দামের সীমা বেঁধে দেওয়ায় বাজার স্বাভাবিক গতি হারিয়ে ফেলেছে বলে মনে করেন তিনি।  

পুঁজিবাজারের লেনদেন স্বাভাবিক করতে শেয়ারের সর্বনিম্ন দামের সীমা বেঁধে দেওয়ার সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার জন্য পরামর্শ দিয়েছেন আবু আহমেদ। ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের কোন গুজবে কান না দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন এই অর্থনীতিবিদ।

Nijhum/sharif