নিয়মিত বিল দিয়েও গ্যাস পাচ্ছে না গ্রাহক

প্রকাশিত: ২৬-১১-২০২২ ১৪:০৫

আপডেট: ২৬-১১-২০২২ ১৫:০৫

আতাউর কাউসার: মাসে মাসে বিল দিয়েও গ্যাস পাচ্ছেনা অনেক গ্রাহক। অনেক জায়গাতে আবার গ্যাসের চাপ কম থাকে। গ্যাস না পেয়ে তাই সিলিন্ডার অথবা ইলেকট্রিক চুলা ব্যবহার করতে বাধ্য হচ্ছেন গ্রাহকরা। এই বাড়তি খরচ মানুষের বোঝা আরও বাড়াচ্ছে।

এজন্য ব্যবহার অনুযায়ী বিল দেয়া এবং সবখানে প্রিপেইড মিটার চালুর দাবি জানিয়েছে তারা। ভোক্তাদের এই দুর্ভোগের বিষয়ে ব্যবস্থা নেয়ার আশ্বাস দিয়েছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। 

রাজধানীর স্বামীবাগ এলাকার বাসিন্দা তামান্না সারাহ। ভোর পাঁচটায় উঠেই শুরু করতে হয় রান্নার কাজ। কেননা ভোর ছয়টার পর থেকে বিকেল চারটার পর্যন্তগ্যাস পাওয়ার সম্ভাবনা কম। তাই সকালের নাস্তার সাথে দুপুরের খাবারটিও রান্না করে অফিস যেতে হয়। কোনদিন সকালের নাস্তা তৈরীর পর গ্যাস চলে গেলে দুপুরের খাবার আনতে হয় বাইরের কোন হোটেল থেকে। কিন্তু মাস শেষে ঠিকই বিল দিতে হয় ১০৮০ টাকা।

এই চিত্র শুধু একটি পরিবারের নয়। দেশের বিভিন্ন জায়গায় এমন দুর্ভোগ পোহাতে হয় অনেককেই। 

ভোক্তাদের অধিকার ক্ষুন্ন হওয়ার এমন দৃষ্টান্তের বিষয়ে অবগত আছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। প্রতিষ্ঠানটির মহাপরিচালকএ.এইচ.এম. সফিকুজ্জামান জানালেন, যে পরিমাণ গ্যাস ব্যবহার করে পোষ্টপেইড গ্রাহক মাস শেষে দেন ১০৮০ টাকা; একই পরিমাণ গ্যাস ব্যবহার করে প্রিপেইড গ্রাহক বিল দিচ্ছেন ২০০ থেকে ৩০০ টাকা। 

সমস্যা সমাধানে শিগগিরই জ্বালানি মন্ত্রণালয়, পেট্রোবাংলা এবং গ্যাস পরিবেশনকারী সংস্থাগুলোর সাথে কথা বলবেন বলে জানালেন ভাক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক। 

তিনি বললেন, গ্যাস ব্যবহার না করেই পোষ্টপেইড গ্রাহকদের মাসে সাত থেকে আটশো টাকা বাড়তি বিল দেয়ার বিষয়ে একটি সমাধান বের করার জরুরি। 

Kawser/sharif