মূল্যস্ফীতি আরও কমেছে

প্রকাশিত: ০৫-১২-২০২২ ১৮:১১

আপডেট: ০৫-১২-২০২২ ১৮:১৪

নিজস্ব প্রতিবেদক: নভেম্বরে মূল্যস্ফীতি আরও কমেছে। বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) সর্বশেষ প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী, নভেম্বর মাস শেষে মূল্যস্ফীতি কমে দাঁড়িয়েছে ৮ দশমিক ৮৫ শতাংশে যা গত মাসে ছিল ৮ দশমিক ৯১ শতাংশ। সেপ্টেম্বরে এ হার ছিল ৯ দশমিক ১০ ও আগস্টে ছিল ৯ দশমিক ৫২ শতাংশ।

সবজিসহ নানা খাদ্যপণ্যর দাম কমেছে বলে দাবি করেছে বিবিএস। সংস্থাটি বলছে, নভেম্বর মাসে খাদ্যপণ্যের দাম কমে মূল্যস্ফীতি ৮ দশমিক ১৪ শতাংশ হয়েছে যা গত মাসে ছিল ৮ দশমিক ৫০ শতাংশ।

আজ (সোমবার) এক সংবাদ সম্মেলনে মূল্যস্ফীতি নিয়ে এ তথ্য জানান পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান। 

মূল্যস্ফীতি নিয়ে বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরোর (বিবিএস) তথ্য তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘নভেম্বর মাসে মূল্যস্ফীতি সামান্য একটু কমেছে, যা শূন্য দশমিক ৬ শতাংশ। সারা বিশ্বেই এখন জিনিসপত্রের দাম কমছে। আমাদের এখানেও মূল্যস্ফীতির হার একটু হলেও কমেছে।’ 

পরিকল্পনামন্ত্রী আরও বলেন, ‘বিশ্বব্যাপী তেল গ্যাসের দামও কমে এসেছে, আমাদের দেশেও অবধারিতভাবে কমবে। তাই সামনের দিনগুলোতে আমাদের মূল্যস্ফীতি আরও কমে আসবে।’ ‘শুধু তাই নয় চলমান ইউক্রেন-রাশিয়ার এ যুদ্ধ পরিস্থিতি এখন যেমন আছে তেমনটি স্থির থাকলেও চলতি অর্থবছর শেষে আমাদের কাঙ্খিত মাত্রা, প্রায় ৭ শতাংশের মতো প্রবৃদ্ধি অর্জন হবে’ বলে তিনি জানান।

মূল্যস্ফীতি হিসাবকে সরকার সাধারতণত দুই ভাগে বিভক্ত করে থাকে। খাদ্য এবং খাদ্য ছাড়া অন্যান্য পণ্য। নভেম্বরে খাদ্যপণ্যের মূল্যস্ফীতি কিছুটা কমলেও খাদ্য বহির্ভূত পণ্যে তা নজরকাড়া পরিমাণে বেড়েছে। 

এ সময় খাদ্য মূল্যস্ফীতি হয়েছে ৮ দশমিক ১৪ শতাংশ এবং অক্টোবরে ছিল ৮ দশমিক ৫০ শতাংশ। অপর দিকে খাদ্য বহির্ভূত পণ্যের মূল্যস্ফীতি অক্টোবরে ছিল ৯ দশমিক ৫৮ শতাংশ। নভেম্বরে তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৯ দশমিক ৯৮ শতাংশে। 

Amirul/sat